দিনহাটায় তৃনমূলের দুই গোষ্ঠীর সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ এক তৃনমূল কংগ্রেসে কর্মী




কোচবিহার, ১৭ জুলাই: ফের তৃনমূলের দুই গোষ্ঠীর সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ এক তৃনমূল কংগ্রেসে কর্মী। ঘটনাটি ঘটেছে দিনহাটা ১নং ব্লকের গিতালদহ গ্রাম পঞ্চায়েতের দড়িবশ এলাকায়। গুলিবিদ্ধ ওই তৃনমূল কংগ্রেস কর্মীর নাম ইমান হোসেন। এলাকায় মাদার তৃনমূল বলে পরিচিত। গুলিবিদ্ধ অবস্থায় তাকে পরিবারের লোকজন দিনহাটা হাসপাতালে নিয়ে এসে ভর্তি করে। ওই ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে আসে দিনাহাটা থানার বিশাল পুলিশ বাহিনী। ওই ঘটনায় পুর দড়িবশ এলাকায় উত্তেজনা রয়েছে। ওই ঘটনায় দিনহাটা থানায় অভিযুক্ত যুব কর্মীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করে গুলিবিদ্ধ ওই তৃনমুল কর্মীর পরিবারের লোকজনরা। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।




স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, তৃনমূল যুব কংগ্রেসের কিছু কর্মী সমর্থক ইমান হোসেনের বাড়িতে আসে তাকে রাতে শাসিয়ে যায়। পরে রাত ২ নাগাদ আবার তারা ফিরে এসে তাকে মারধোর করে এবং ডান পায়ে গুলি করে বলে অভিযোগ। ওই এলাকায় পঞ্চায়েত নির্বাচনের সময় যুব তৃনমূলের বিরুদ্ধে ভোট প্রচার করে বেড়িয়েছে। পঞ্চায়েত ভোট দিয়ে ওই গুলিবিদ্ধ তৃনমূল কর্মী বাড়ির বাহিরে গিয়ে ছিল। সে আর এলাকায় প্রায় এক মাস ধরে বাসড়িতে আসে নি। কয়েকদিন হল ফিরে আসার। তাঁর পর কতকাল তাঁর দরিবসের বাড়িতে গিয়ে তাকে যুব তৃনমূল কংগ্রেসের লোকজন মারধোর করে ও তাঁর ডান পায়ে গুলি করে।

গুলিবিদ্ধ তৃনমূল কর্মী ইমান হোসেন অভিযোগ কোর বলেন, “গতকাল রাত ১১টা নাগাদ তাদের বাড়িতে হামলা চালায় তৃণমূল যুব কংগ্রেস কর্মীরা। তারপর রাত্রি ২টা নাগাদ তারা আবার তাঁর বাড়ীতে গিয়ে বেধড়ক মারধর করা হয়। অভিযোগ তাকে লক্ষ্য করে গুলি চালায় যুব তৃনমুল কংগ্রেস কর্মীরা। পরে আমি পালাতে গেলে আমার ডান পায়ে গুলি করে বলে অভিযোগ।”

সিতাই বিধানসভার তৃনমূল কংগ্রেস বিধায়ক জগদীশ বর্মা বসুনিয়া বলেন, “পঞ্চায়েত নির্বাচনের সময় যারা এলাকার মানুষকে ঠিক মত ভোট দিতে দিত না। তারায় আগেও সন্ত্রাস করেছে এখন তারাই করছে। এরা তৃনমূল কংগ্রেস দলটাকে নষ্ট করার চেষ্টা করছে। আমরা পুলিশ প্রশাসন কে বলেছি অভিযুক্ত দের চিহ্নিত করে শান্তি দেওয়ার ব্যবস্থা করুক।”

এবিষয় নিয়ে কোচবিহার জেলার যুব তৃনমূল কংগ্রেসের সাধারন সম্পাদক নিশিত প্রামানিক যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, “আমি কলকাতায় আছি। এরকম ঘটনা সম্পর্কে আমার জানা নেই। খোঁজ নিয়ে দেখে জানাবো।”

প্রসঙ্গত, দিনহাটাতে তৃণমূলের গোষ্ঠী কোন্দল দীর্ঘদিনের। বিভিন্ন গ্রাম পঞ্চায়েতের ক্ষমতা দখলকে কেন্দ্র করে গত কয়েকমাস ধরেই উত্তপ্ত হয়ে উঠছে দিনহাটা। পঞ্চায়েত নির্বাচন পর্বেও এই কোন্দল অব্যাহত ছিল। যার জেরে এক কর্মীর মৃত্যু পর্যন্ত হয়। আহত হয় অনেকে। পঞ্চায়েত নির্বাচন শেষ হয়ে গেলেও পরিস্থিতির কোনও বদল ঘটেনি। অবস্থা এতটায় খারাপ যে চাংবাবান্দার সভায় এসে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে রং না দেখে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য পুলিশকে নির্দেশ




You May Also Like

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!