গঙ্গারামপুরে আদিবাসী ছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টা, গ্রেপ্তার অভিযুক্ত যুবক




গঙ্গারামপুর, ১৬ ফেব্রুয়ারিঃ অষ্টম শ্রেণির এক আদিবাসী ছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগে এক যুবককে গ্রেপ্তার করল পুলিশ। ধৃতের নাম মোস্তাকিম মণ্ডল(২২) ওরফে আপেল। বাড়ি গঙ্গারামপুর থানার মোহনপুর এলাকায়। অন্যদিকে নির্যাতিতা কিশোরী বর্তমানে গঙ্গারামপুর মহকুমা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। অভিযোগ পেয়ে গোটা ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে গঙ্গারামপুর থানার পুলিশ।





 

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, নির্যাতিতা ওই ছাত্রীর বাবা-মা অনেক দিন আগেই মারা গেছেন। ছোটবেলা থেকে সে মোহনপুরে মামার বাড়িতে থাকে। স্থানীয় ফুলবাড়ি হাইস্কুলে অষ্টম শ্রেণিতে পড়াশোনা করে সে।




গতকাল দুপুর বারোটার দিকে মাঠে থাকা গোরুকে জল খাওয়াতে যাওয়ার সময় প্রতিবেশী যুবক মোস্তাকিম ওই কিশোরীকে জোর করে সরিষা ক্ষেতে তুলে নিয়ে যায়। সেখানে তাকে জোর করে ধর্ষণ করার চেষ্টা করে অভিযুক্ত যুবক। এদিকে ঘটনায় ওই কিশোরী অসুস্থ হয়ে পড়লে বিষয়টি জানতে পারে পরিবারের লোকজন। প্রাথমিক চিকিৎসার জন্য স্থানীয় গঙ্গারামপুর মহকুমা হাসপাতালে ভরতি করানো হয় তাকে।




এদিকে গতকালই গঙ্গারামপুর থানায় লিখিত অভিযোগ করতে গেলে ফিরিয়ে দেওয়া হয় নির্যাতিতার পরিবারকে বলে অভিযোগ। অবশেষে শুক্রবার স্থানীয় বিজেপি নেতা মানস সরকারের চেষ্টায় নির্যাতিতার পরিবারের অভিযোগ নেয় গঙ্গারামপুর থানার পুলিশ। এদিকে অভিযোগ পাওয়ার পরই অভিযুক্ত যুবককে গ্রেপ্তার করা হয়। স্থানীয়দের অভিযোগ, প্রথম দিকে পুলিশ পুরো বিষয়টিকে ধামাচাপা দিতে চেয়েছিল। পরে অবশ্য চাপে পড়ে অভিযোগ নিতে বাধ্য হয় পুলিশ। গোটা ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে।




এবিষয়ে স্থানীয় বিজেপি নেতা মানস সরকার জানান, “তিনি ওইদিনই সকালে কলকাতা থেকে বাড়িতে আসেন। বাড়ি ফিরেই পুরো বিষয়টি জানতে পারেন। এদিকে বাড়ি আসার খবর পেয়ে ততক্ষণে গ্রামবাসীরা তার বাড়িতে গিয়ে ভিড় জমাতে থাকেন। এরপরই তার চেষ্টায় পুলিশ ঘটনার অভিযোগ নেয় এবং অভিযোগের কিছু পরেই পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয় অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।”





You May Also Like

error: Content is protected !!