‘১৯-এ অর্ধেক, ২১-এ পুরো সরকার পালটে যাবে’, বালুরঘাটে দিলীপ ঘোষ




বালুরঘাট, ৮ জুন: “একটা ছোট্ট ধাক্কায় তো দিয়েছি। তাতেই আট’টা ডিএম, পাঁচটা এসপি ও তিনটে মন্ত্রী পালটে গেল। পালটে গেল মন্ত্রীদের দপ্তরও। সবে তো এ পেহেলি ঝাঁকি হে। আভি পুরা ফিল্ম বাকি হে। ২০১৯ সালে দেখবেন অর্ধেক সরকারই পালটে গেছে। আর ২০২১ সালে পুরো সরকার পালটে যাবে।” শুক্রবার বালুরঘাট সত্যজিৎ মঞ্চে বিজেপির কর্মী সভায় যোগ দিতে এসে এমনই কড়া ভাষায় মন্তব্য করলেন রাজ্য বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তিনি আরও বলেন, আগামী ১১ তারিখ পুরুলিয়া যাবেন। তাঁকে কে আটকাচ্ছে, দেখবেন তিনি।




দিলীপ ঘোষ ছাড়াও এদিনের কর্মী সভায় হাজির ছিলেন বিজেপির জেলা সভাপতি শুভেন্দু সরকার, জেলা পর্যবেক্ষক সঞ্জীব মিশ্র, সাধারণ সম্পাদক বাপি সরকার, মানস সরকার, বিজেপি নেত্রী মাফুজা খাতুন সহ অন্যান্য বিজেপি জেলা নেতৃত্ব।

এদিনের কর্মী সভায় হাজির ছিলেন প্রায় হাজারখানেক কর্মী সমর্থক। পঞ্চায়েত নির্বাচনের পর এই প্রথম দক্ষিণ দিনাজপুরে আসলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। বিভিন্ন বুথ থেকে মণ্ডল কমিটির সভাপতি ও কর্মীদের নিয়ে এদিনের সভা অনুষ্ঠিত হয়।

এদিন সকালে সভা শুরুর আগে দিলীপবাবু বালুরঘাট চরপাড়া এলাকার আক্রান্ত বিজেপি কর্মীদের সঙ্গে দেখা করেন। কথা বলার পাশাপাশি চা’ও খান সেখানে। এরপর সত্যজিৎ মঞ্চে জেলা বিজেপি নেতৃত্বদের সঙ্গে সভা করেন তিনি। আগামী লোকসভা নির্বাচনকে ‘পাখির চোখ’ করে দলকে শক্তিশালী করার প্রক্রিয়া ও রণকৌশল সাজাচ্ছে বিজেপি।

এদিন সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলার সময় দীলিপ ঘোষ আরও বলেন, ডাক্তারজী নিজে কংগ্রেসী ছিলেন। প্রণববাবুও কংগ্রেসের। আদর্শগত মতভেদ থাকতেই পারে। গান্ধীজি এসেছিলেন সংঘ শিক্ষা শিবিরে। এইরকম প্রচুর জ্ঞানী, গুণী মানুষ এসেছেন এবং সংঘ সম্বন্ধে তাঁদের মন্তব্য রেখেছেন। প্রনববাবু আরএসএস’কে ভালো চেনেন, তাই তিনি যা বলেছেন ভেবেই বলেছেন।





You May Also Like

error: Content is protected !!