রাষ্ট্রপতির কাছে আত্মহত্যার অনুমতির চিঠি চা নিলাম কেন্দ্রের কর্মী




জলপাইগুড়ি, ১২ জুলাই: কর্মস্থল দীর্ঘদিন যাবৎ বন্ধ, বেতন মিলছে না কয়েকমাস হয়ে গেল। কর্মস্থলের অচলাবস্থা কবে কাটবে, আদৌ কাটবে কিনা উত্তর জানা নেই। পরিবারে কয়েকটি মুখ তাঁর উপার্জনের ওপরেই নির্ভর করে আছে। বেতনের অভাবে সংসার চালাতে হিমশিম খাচ্ছেন। তাই উপায়ন্তর না খুঁজে পেয়ে দেশের রাষ্ট্রপতির কাছে আত্মহত্যার অনুমতি চাইলেন জলপাইগুড়ি চা নিলাম কেন্দ্রের চুক্তিভিত্তিক সাফাই কর্মী মধু রাউত এবং কুশ রাউত। সেই চিঠির কপি পাঠিয়েছেন দেশের প্রধানমন্ত্রী এবং জেলা শাসককেও।




২০০৫ সালে চা নিলাম কেন্দ্রটি চালু হয়েছিল। চায়ের জোগান ঠিকমত না থাকায় কয়েক বছর পর বন্ধ হয়ে যায় কেন্দ্রটি। ২০১৫ সালের ৮সেপ্টেম্বর থেকে কেন্দ্রটি পুরোপুরি বন্ধ। ২০১৭ সালের সেপ্টেম্বর মাস থেকে নিলাম কেন্দ্রের কর্মীরা বেতন পাচ্ছেন না। তাই বাধ্য হয়ে আত্মহত্যার অনুমতি চেয়ে রাষ্ট্রপতিকে চিঠি লিখেছেন মধু রাউত। মধু বাবু জানান, দীর্ঘ ১০ মাস ধরে বেতন বন্ধ। টাকার অভাবে সংসার চালাতে পারছেন না।

বাধ্য হয়ে আত্মহত্যার অনুমতি চেয়েছেন। তিনি জানান, চা নিলাম কেন্দ্রের সম্পাদক নিরঞ্জন বসু মারা যাওয়ার পর থেকেই তাদের বেতন বন্ধ আছে। নতুন করে এখনও সম্পাদক নির্বাচন হয়নি। তবে তাদের চিঠির পরে সরকার ও প্রশাসনের থেকে খোঁজ খবর নেওয়া শুরু হয়েছে। তিনি বলেন, তাঁরা চান চা নিলাম কেন্দ্রটি দ্রুত চালু হোক। তবে শুধু মধু বাবুরাই নন, চা নিলাম কেন্দ্র দ্রুত চালু হোক এই দাবী জলপাইগুড়ির শহরবাসীর দীর্ঘদিনের। সেই শুভক্ষনের প্রতীক্ষায় রয়েছে জলপাইগুড়িবাসী।




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!