গভীর নিম্নচাপের জেরে দুর্ভোগ কলকাতা সহ সমগ্র দক্ষিণবঙ্গে

ওয়েব ডেস্কঃ বঙ্গোপসাগরে সৃষ্টি হওয়া গভীর নিম্নচাপের জেরে রবিবার রাত থেকে কলকাতা সহ দক্ষিণবঙ্গে শুরু হয়েছে প্রবল বৃষ্টি। সঙ্গে রয়েছে প্রবল ঝোড়ো হাওয়া। এক নাগারে বৃষ্টির ফলে নাকাল শহরবাসী। শহর-শহরতলিতে একাধিক জায়গায় ভাঙল গাছ। এই পরিস্থিতি আগামী ৪৮ ঘণ্টাতেও বদলের বিশেষ সম্ভাবনা নেই বলেই জানিয়েছে আলিপুর আবহাওয়া দপ্তর। ফলে দুর্ভোগ আরও দু’দিন চলার আশঙ্কা।

রবিবার থেকেই আকাশ মেঘে ঢাকা। মাঝে-মধ্যেই দমকা হাওয়া। গরমের ক্লান্তি কাটিয়ে হঠাৎই একটু ঠান্ডার আমেজ। কিন্তু সেই আমেজই বিপত্তি ডাকল স্বাভাবিক জনজীবনে। ইতিমধ্যেই বিটি রোড, শ্যামবাজার, সেন্ট্রাল অ্যাভিনিউয়ের বেশ কিছু এলাকায় জল জমে। জল জমে পাতিপুকুর এবং দমদম আন্ডারপাসেও। তবে পুরসভার তরফে পাম্প চালিয়ে দ্রুত জল নামিয়ে দেওয়ার চেষ্টা চালানো হয়েছে। তবে পরিস্থিতি জটিল হয়েছে একাধিক জায়গায় রাস্তার উপর গাছ ভেঙে যাওয়ায়। গড়িয়াহাট রোড, ট্রান্সপোর্ট ডিপো রোড, স্ট্র্যান্ড রোড, ডিপিএস রোড এবং এজেসি বোস রোডের সংযোগস্থল, নারকেলডাঙা মেন রোড, লেকটাউন-সহ একাধিক জায়গায় গাছ ভেঙে পড়েছে। গাছ সরাতে বেশকিছুক্ষণ লেগে যায়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে রীতিমতো হিমশিম খেতে হয়েছে কর্তব্যরত ট্রাফিক গার্ডদের। তবে বেলার দিকে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়ে যায়।

আবহাওয়া দপ্তর সূত্রে খবর, উত্তর বঙ্গোপসাগরে তৈরি হওয়া নিম্নচাপ সুস্পষ্ট নিম্নচাপে পরিণত হয়েছে। কলকাতা থেকে ৫০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পূর্বে সাগরে তা অবস্থান করছে। যার ফলে কলকাতা-সহ গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গের প্রত্যেকটি জেলাতে বৃষ্টি হচ্ছে। কোথাও কোথাও বিক্ষিপ্তভাবে ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা। সঙ্গী হবে ঝোড়া হাওয়া। উপকূলের জেলাগুলিতে ঘণ্টায় ৪৫-৫০ কিলোমিটার বেগে এবং স্থলভাগে ৩০-৪০ কিলোমিটার বেগে ঝোড়ো হাওয়ার কথা জানিয়েছে আলিপুর আবহাওয়া দপ্তর। এদিন কেন্দ্রীয় আবহাওয়া দপ্তরের উপ-মহা নির্দেশক সঞ্জীব বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন, নিম্নচাপটি দক্ষিণ, দক্ষিণ-পশ্চিম দিকে সরে ঝাড়খণ্ডের দিকে চলে যাওয়ার সম্ভাবনা। কিন্তু তাতে পরিস্থিতির উন্নতি হবে না। এরকম আবহাওয়া আগামী ৪৮ ঘণ্টা থাকবে। ইতিমধ্যে মৎস্যজীবীদের সমুদ্রে যেতে বারণ করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *