৭ বছর ধরে গরহাজির এক শিক্ষক, বাকিরাও অনিয়মিত- বিদ্যালয়ে বিক্ষোভ







কালিয়াগঞ্জ, ১ এপ্রিল: এক শিক্ষকের দীর্ঘ অনুপস্থিত ও কিছু শিক্ষকের অনিয়মিত উপস্থিতি অভিযোগ উঠল উত্তর দিনাজপুর জেলার কালিয়াগঞ্জ ব্লকের মুস্তাফা নগর গ্রাম পঞ্চায়েতের অধীন সাহাপুর প্রাথমিক বিদ্যালয়ে। এই অভিযোগে স্কুলে বিক্ষোভ দেখান অভিভাবকেরা। এদিনও পড়ুয়াদের সময়মতো স্কুলে আসে। কিন্তু সাড়ে এগারোটা পার হবার পর এক শিক্ষিকা এলেও দেখা মেলেনি অন্যান্য শিক্ষকদের। এতেই ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠেন অভিভাবকরা। স্কুলে মোট শিক্ষক ৬ জন শিক্ষিকা ২ জন মোট ৮ জন আর ছাত্র-ছাত্রীর সংখ্যা আনুমানিক ১৫০ জন। অভিযোগ, একসঙ্গে কোন দিন এই ৮ জনকে স্কুলে উপস্থিত থাকতে দেখা যায়নি। এক শিক্ষক বিরুদ্ধে আবার অভিযোগ জড়াল, গত ৭ বছর ধরে গরহাজির থাকার অভিযোগ তুলেন অভিভাবক থেকে শুরু করে স্কুলের পড়ুয়ারা। অভিভাবকদের আরও অভিযোগ বিদ্যালয়ে শিক্ষক-শিক্ষিকা না আসায় ছাত্র-ছাত্রীদের পড়াশুনা ঠিক মতো হয় না। মিডডে-মিলও ভাল দেওয়া হয় না। শিক্ষক-শিক্ষিকাদের শস্তির দাবিতে সরব হয় গ্রামবাসী। এই ঘটনার জেরে বিদ্যালয়ে চাঞ্চল্য ছড়ায়।





মুসলীম আহমেদ নামে এক অভিভাবক অভিযোগ করে জানান, সরকার শিক্ষার মান উন্নয়নের জন্য চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে সেখানে দাঁড়িয়ে কিছু দুষ্টু শিক্ষক-শিক্ষিকাদের জন্য এমন অবস্থার মধ্যে পড়তে হচ্ছে তাদের ছেলে- মেয়েদের। এই সব শিক্ষক শিক্ষিকাদের শাস্তির দাবি তোলে। যাতে আগামীতে সাহাপুর প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পড়াশুনার মান উন্নয়ন হয়।




অপরদিকে ইয়াসমিন নামে এক ছাত্রী জানান, তাদের স্কুলে পড়াশুনা ভাল হয় না। শিক্ষিক-শিক্ষিকারা ঠিক মতো স্কুলে আসে না। এক শিক্ষক গত ৭ বছর ধরে স্কুলে আসে না। তাকে কোন দিনও দেখেনি, সেই শিক্ষককে চিনেও না।




এদিকে এই বিষয়ে কালিয়াগঞ্জের বিডিও মহম্মদ জাকারিয়াকে জানানো হলে তিনি জানান, শিক্ষক-শিক্ষিকাদের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ খতিয়ে দেখা হবে। এই বিষয়ে তিনি ১ নম্বর অবর বিদ্যালয় পরিদর্শকে নির্দেশ দেওয়া হবে।




You May Also Like

error: Content is protected !!