নারী দিবসে উঃ দিনাজপুরে চালু হল মহিলা চালক দিয়ে অ্যাম্বুলেন্স পরিষেবা







রায়গঞ্জ, ৮ মার্চ: রাজ্যের মধ্যে প্রথম প্রাতিষ্ঠানিক প্রসবের হার একশ শতাংশ নিশ্চিত করতে আন্তর্জাতিক নারী দিবসের দিনেই উত্তর দিনাজপুরে চালু হলো স্বনির্ভর দলের মহিলাদের মধ্যে থেকে বেছে নিয়ে মহিলা চালক দিয়ে অ্যাম্বুলেন্স পরিষেবা। উত্তর দিনাজপুর জেলাশাসক আয়েষা রানী এ- সবুজ পতাকা নাড়িয়ে জেলায় বেশ কয়েকটি ব্লকের প্রসূতিদের হাসপাতাল বা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে যাওয়া আসার জন্য আটটি অ্যাম্বুলেন্সের শুভ সূচনা করলেন ” মিশন মাতৃযান ১০০ ” র। সীমান্ত উন্নয়ন তহবিলের আর্থিক সহায়তায় এই ” মিশন মাতৃযান ১০০ ” অ্যাম্বুলেন্স এখন থেকে গ্রামের প্রত্যন্ত অঞ্চলের মহিলারাই চালক হিসেবে কাজ করবেন।





বর্তমান সমাজে নারীরা আর পুরুষদের চাইতে মহিলারা কোনও অংশেই কম নন। এবার রাজ্যের মধ্যে প্রথম স্বনির্ভর দলের গ্রামীণ নারীদের দেখা যাবে উত্তর দিনাজপুর জেলাতে অ্যাম্বুলেন্স চালকের আসনেও। প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চল থেকে প্রসূতি কিংবা মুমূর্ষু কোনও রুগীকে হাসপাতাল বা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে বিনামূল্যে পৌঁছে দেবেন আরতি টুডু, জয়ন্তী বৈদ্য, বিপুলা রায় কিংবা শিখা কাছুয়ারা। উত্তর দিনাজপুর জেলাশাসক আয়েষা রানী এ বলেন, গ্রাম পঞ্চায়েত ভিত্তিক স্বনির্ভর দলের সংঘ থেকে মহিলাদের বাছাই করে তাদের রীতিমতো প্রশিক্ষণ দিয়ে তৈরি করেছেন অ্যাম্বুলেন্স চালক।




এদিন তাদের হাতে তুলে দিলেন ” মিশন মাতৃযান ১০০ ” নামের এই অ্যাম্বুলেন্স। রাজ্য সরকারের নিশ্চয়যানের সমপরিমাণ টাকা আয় করবেন এই মহিলারা। এতদিন পর্যন্ত গৃহবধূ থাকা আরতি টুডু নামের অ্যাম্বুলেন্স চালক জানান, “কোনওদিন ভাবিনি অ্যাম্বুলেন্স চালকের কাজ করে গ্রামগঞ্জের প্রসূতি মায়েদের এভাবে স্বাস্থ্য পরিষেবা দিতে পারব। নিজেকে খুব গর্ববোধ করছি একজন অ্যাম্বুলেন্স চালক রূপে কাজ করতে পেরে।




You May Also Like

error: Content is protected !!