তৃণমূলের পক্ষ থেকে এন আর সি ও বিজয়া সম্মেলন উপলক্ষে পথসভা




উত্তর ২৪ পরগনা,১২ অক্টোবর:নিউটাউন লস্কর হাটি বাজারে তৃণমূলের পক্ষ থেকে এন আর সি ও বিজয়া সম্মেলন উপলক্ষে একটি পথসভার আয়োজন করা হয়। সেই পথসভায় উপস্থিত ছিল সংসদ কাকলি ঘোষ দস্তিদার ,আরাবুল ইসলাম, তাপস চ্যাটার্জি ও স্থানীয় নেতৃত্ব। এই পথ সভাতে এনআরসি নিয়ে যেমন আলোচনা হয় তার পাশাপাশি দল থেকে বেরিয়ে যারা বিজেপিতে যোগ দিয়েছে এবং নিউটাউন রাজারহাটের বিধায়ক সব্যসাচী দত্তকে কড়া ভাষায় কটাক্ষ করা হয়।




তাপস চ্যাটার্জি বলেন…….পাথরঘাটাতে আমরা জিতেছি। জিতেছি কিভাবে আপনারা সকলে জানেন “””কথা কিছু কিছু বুঝে নিতে হয় মুখে বলা যায় না “””আমাদের লোকসভা চলাকালীন এখানে বিজেপি দুপ্রকার, একটা দৃশ্যত বিজেপি আর একটা অদৃশ্য বিজেপি এই অদৃশ্য বিজেপি। পাথরঘাটা থেকে নারায়নপুর কম ছিল না। তারা এখন কী করবে না করবে ভেবে উঠতে পারছে না। পথ কোনো বড় কথা নয়। পথ কারোর চিরন্তন নয়। এমএলএ সভাপতি এগুলো হলো টেম্পোরারি পদ আজ আছে কাল নেই ।আর মানুষটা যদি ভাল হয় সেটাই হলো পার্মানেন্ট পদ। আট বছর ধরে আমাদের একটা এমএলএ ছিল তার নাম সব্যসাচী দত্ত ।তিনি জানান বিধায়ক কতটা আছে এখন সারা নিউটাউনে চালু হয়েছে বিধায়ক না “””বিদায় হোক “””।আমি এখন শুনলাম শুনে স্তম্ভিত হয়ে গেলাম আফতাবকে নাকি কে থ্রেট করেছে কি করে নেবে।আমি বলেছি সাতদিন বুকের পাটা থাকে তো দেখে নাও একটা ফোন করবো তো দাঁড়িয়ে যা যা বিষয় আছে সব্যসাচী বাবু যাদের নিয়ে চলতেন তাদের গিয়ার এখন আমাদের হাতে ওসব কোন লাভ নেই। আমার প্রতি ওনার এলার্জি থাকতো আমি ওনার কার্যকলাপে বিরোধী ।আমি যখন শুরু করেছিলাম তখন দুজন কাউন্সিলের আমার সঙ্গে ছিল দেখতে দেখতে এমন হলো বাবলা তলার মোড়ে আমাকে বলেছিল আমি নাকি মশা ইত্যাদি ইত্যাদি ।

তো আমি জানি না আমি কখন ডেঙ্গু মশা হয়ে গেছি এমন কামড়েছি একদম মেয়ের পর থেকে চলে গেছে। আজকের নরেন্দ্র মোদির জন্মদিন পালন করছে। ওর সঙ্গে যারা ছিলেন নীরবতা পালন করবেন না নিজেকে শুদ্ধ হবেন না ওর সঙ্গে যারা ছিলেন ।নিজের বাবার জন্মদিন পালন করেন না নরেন্দ্র মোদির জন্মদিন পালন করছেন ।একটা এমএলএ কে মুখ্যমন্ত্রীর নামে চেনেন মুখ্যমন্ত্রী কে আমি বলব না যে পাথরঘাটা হাসপাতাল টা কি অবস্থা ছিল পাথরঘাটা হাসপাতালটা নেই ।নারায়ণপুরে একটু হাসপাতাল করার জায়গা পেয়েছি সেখানে হাসপাতাল করেছি আর কে বা কারা বলছে ওসব আমরা দেখে নেব বুঝে নেব ।ওসব কিছু না ওসব ফাঁকা আওয়াজ ওসব করতে যাবেন না ওসব আওয়াজ দিয়ে লাভ হবে নেই। নিউটাউন এর আকাশে-বাতাসে এখন তৃণমূল যুব কংগ্রেস অন্য কিছু নেই ।এখন আফতাবউদ্দিন হচ্ছে বিরাট কোহলি আর যদি আফতাবের কোন ঘটনা ঘটে তবে মনে রাখবেন আইনের দ্বারা নির্বাচিত প্রতিনিধি মনে রাখবেন এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে বাস করতে দেবোনা নিউটাউনে মস্তান পুশবনা না আমরা । মস্তান পোষার জন্য মানুষ আমাদের নেতা করেনি ।একটু ওষ্ঠ দুষ্টু ছেলে ভালো কাজে লাগে তাকে ঠিক মতো করো বিষয়টাকে রাখ কিন্তু পাগলা কুকুর হয়ে গেলে মেরে ফেলে দিতে হবে ।এর পর কোন কথা হতে পারে না। মস্তান কখনো পার্টিকর্মী হয় না পার্টিকর্মী পার্টি কর্মী থাকে।

কাকলি ঘোষ দস্তিদার বলেন ………..হিংসার কোন ওষুধ নেই, হিংসা করলে করতেই পারে হিংসে করে দল ছেড়ে দিতেই পারেন ।বাচা গেছে দলটা পরিষ্কার হয়েছে, বাঁচা গেছে আমাদের দলটা সুন্দর হয়েছে। এবার তৃণমূল কংগ্রেস মানুষের কাজটা আরো ভালোভাবে করতে পারবে এই বিশ্বাস আমি রাখি।

আরাবুল ইসলাম জানান……..আজকে আমরা আপনাদের কাছে বলতে চাই আমাদের নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এর নেতৃত্বে বাংলা যখন একটা উন্নয়নের ধারাকে অক্ষত রেখে আজকে বাংলার মাটিতে লড়াই-সংগ্রাম চলছে ।আজকে চক্রান্ত করে আমাদের দলের কিছু গাদ্দার আমাদের দলের কিছু নেতা তারা গাদ্দারি করে তারা মনে করছে মোদী বাবুর হাত ধরলে বাংলায় তৃণমূল কংগ্রেস থাকবে না রাজারহাটে তৃণমূল কংগ্রেস থাকবে না ।আমরা শুধু একটা কথা বলতে চাই আমাদের দল বড় আমাদের নেত্রী বড় এটা মনে রাখতে হবে। আজকে কিছু ব্যক্তি দল থেকে চলে গিয়ে দলকে কিন্তু ছোট করা যাবে না। আমাদের বাংলা নেত্রী যার নেতৃত্বে বাংলায় যখন জনজোয়ার চলছে কিছু নেতা দল থেকে চলে গিয়ে দলের কোন ক্ষতি হবেনা। আপনাদের কাছে শুধু বলবো রাজারহাট নিউটাউন এ অনেক নেতৃত্ব আছে লড়াই করার সংগ্রাম করার যোগ্য নেতৃত্ব এখানে আছে ।আপনাদের কাছে শুধু করজোড়ে আবেদন রাখবো আপনারা লড়াই-সংগ্রাম করে দলের সাথে থেকে আপনারা লড়াই করুন আপনাদের লড়াই সফল হবে।




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!