অনলাইন গেম,এখন নতুন আতঙ্ক




ওয়েব ডেস্ক,১০ আগস্টঃ মেমো এটি একটি অনলাইন গেম। যা মূলত ছড়িয়ে পড়েছে হোয়াটসঅ্যাপ,ফেসবুকের মতো সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে।’মেমো’ হলো এই প্রযুক্তির একটি খারাপ দিক।’মেমো’ নিয়ে আতঙ্ক ছড়ায় আর্জেন্টিনার এক কিশোরীর আত্মহত্যার ঘটনাকে কেন্দ্র করে। পুলিশের ধারণা ছিল যে ‘মেমো’-র গেম চ্যালেঞ্জে অংশ নেওয়া ওই কিশোরীকে আত্মহত্যা করতে বলা হয়েছিল। এই গেমটি আমেরিকা,জার্মানি,ফ্রান্সের মতো উন্নত দেশগুলোতে দ্রুত ছড়িয়ে পড়েছে।




তবে ভারতে এই গেমের কবলে পরে কেও আত্মহত্যা করেছ তা এখনও পর্যন্ত জানা যায়নি। মেমো গেমটির লিঙ্ক খুললেই ভেসে ওঠে ভয়ংকর একটি মুখ।অনেক ব্যবহারকারী জানিয়েছেন যে, মেমোতে বার্তা পাঠানোর পর সেখান থেকে হিংসাত্মক ছবি পাঠানো হয়। অনেকে আবার হুমকিমূলক বার্তা পেয়েছেন এবং ব্যক্তিগত তথ্যও ফাঁস হয়ে যাচ্ছে। এই গেমটি ব্লু হোয়েল চ্যালেঞ্জের আতঙ্কের কথা মনে করিয়ে দেয়। এই গেমে যে ভয়ংঙ্কর চেহারাটি ভেসে উঠছে তা জাপানি শিল্পী হায়াশির একটি শিল্প কর্ম বলে মনে করা হয়েছিল। কিন্তু এই শিল্পকর্ম যে তার নয় তা তিনি সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে জানিয়ে দিয়েছিলেন।

এই ‘মেমো’ গেম এর উৎস কোথায়? বা কারা এর পেছনে রয়েছে তা এখনো জানা যায়নি। ভারতে এই গেমের প্রভাব না পড়লেও সাবধানে থাকাই শ্রেয়। অভিবাবকদেরও উচিত নিজের সন্তানদের দিকে একটু বেশিই যত্ন নেওয়া।তাহলে হয়তো পরবর্তী পর্যায়ে এই গেমের শিকার আর কাউকে হতে হবে না।




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!