কালিয়াগঞ্জের ত্রিধারা ক্লাবের শ্যামাপূজা প্রস্তুতি

কালিয়াগঞ্জ, ১২ অক্টোবর: শারদ উৎসবের রেশ কাটিয়ে এবার আপামর বাঙালি মেতে উঠেছে শ্যামাপূজার আরাধনায়। হাতে আর কয়েকদিন। সেই কারনে পূজা কমিটিগুলির ব্যস্ততা এখন তুঙ্গে। রাত-দিন এক করে বিগ বাজেটের পূজা মণ্ডপ তৈরির কাজ চলছে। উত্তর দিনাজপুর জেলার বিগ বাজেটের নজরকাড়া পূজাগুলির মধ্যে অন্যতম কালিয়াগঞ্জের হাসপাতাল পাড়ার ত্রিধারা ক্লাবের পূজা। এবারের শ্যামাপূজায় কোনো খামতি নেই। তাদের পূজা মণ্ডপ তৈরি হচ্ছে থাইল্যান্ডের বুদ্ধ মন্দিরের আদলে, যা দর্শনার্থীদের নজর কাড়বে। মণ্ডপের বাইরে ও মণ্ডপের ভিতরে রয়েছে কারুকার্য। পূজা মণ্ডপ তৈরির দায়িত্বে আছে কাঁথির শিল্পীরা। শ্যামা মাকে দেখা যাবে সতীদাহ প্রথার আদলে। শ্যামা মা তৈরির দায়িত্বে আছে দক্ষিন দিনাজপুর জেলার হরিরামপুরের শিল্পী। এবারে ত্রিধারা ক্লাবের শ্যামাপূজা ৪২তম বর্ষে পদার্পণ করেছে। প্রতিবারের ন্যায় এবারেও পূজার আগে থেকেই সাংস্কৃতিকমূলক প্রতিযোগিতা থেকে শুরু করে রক্তদান শিবিরের আয়োজন করা হয়েছে। পূজার পরে কলকাতার বিশিষ্ট সঙ্গিত শিল্পী সহ স্যাকশো ফোন সহ অনুষ্ঠানের আয়োজন আছে। যা জেলাবাসীর কাছে আকর্ষনের কেন্দ্র থাকবে। পূজা কমিটির উদ্যোগতারা আরও বলেন, পূজার দিনগুলিতে তাদের পূজা মণ্ডপে জন-জোয়ার হয়। শুধু জেলার নয় পাশের জেলার বহু মানুষ আসে। এবারেও ত্রিধারা ক্লাবের পূজার বাজেট ২০ লক্ষ টাকার উপরে ধার্য করা হয়েছে। এখন শুধু সময়ের অপেক্ষা। তারপরেই আপামর বাঙালি মেতে উঠবে শ্যামাপূজায়।

ক্লাব সম্পাদক সুজিত সরকার জানান, তাদের ত্রিধারা ক্লাবের পূজা শুধু জেলার নয় আশেপাশের জেলাগুলির মধ্যেও অন্যতম। প্রচুর মানুষের সমাগম হয়ে থাকে এখানে। তাদের এবারের পূজা মণ্ডপ তৈরী হচ্ছে থাইল্যান্ডের বুদ্ধ মন্দিরের আদলে। শ্যামা মাকে দেখা যাবে সতীদাহ প্রথার আদলে। পূজার আগে ও পূজার পরে বেশ কিছু সাংস্কৃতিকমূলক অনুষ্ঠান ও প্রতিযোগিতা সহ রক্তদান শিবিরের আয়োজন করা হয়েছে। এবারে তাদের পূজার বাজেট আনুমানিক ২০ লক্ষ টাকা ধরা হয়েছে।


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *