কুলিক নদীতে আবর্জনা ফেলার প্রতিবাদে অভিযোগ দায়ের রায়গঞ্জ থানায়

রায়গঞ্জ, ১৩ অক্টোবরঃ “কুলিক নদী বাঁচাও” স্লোগান নিয়ে যখন স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ও জেলা প্রশাসন তৎপরতা দেখিয়ে নদী দূষণ রোধে কাজ শুরু করার প্রয়াস নিয়েছে, ঠিক এমন সময়ে একটি বেসরকারি বেকারি কারখানা তার বর্জ্য আবর্জনা, পচা ও নষ্ট হয়ে যাওয়া পাউরুটি, বিস্কুট ও দুর্গন্ধ সামগ্রী কুলিক নদীর জলে ফেলতে শুরু করেছে। এর প্রতিবাদে উত্তেজনা দেখা দিল উত্তর দিনাজপুর জেলার রায়গঞ্জ শহরে। হিমালয়ান মাউন্টেনার্স অ্যাসোসিয়েশন নামে একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের পক্ষ থেকে রায়গঞ্জ থানায় বেকারি সংস্থার বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে দুই ভ্যানচালককে আটক করার পাশাপাশি ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে।

বিজ্ঞাপন

জানা যায়, রায়গঞ্জ সুভাষগঞ্জ এলাকার একটি বেসরকারি সংস্থার বর্জ্য আবর্জনা ও পচা সামগ্রী তিনটি ভ্যানে করে কুলিক নদীতে ফেলতে নিয়ে আসে। প্রথম ভ্যান ফেলার পরেই স্থানীয় বাদিন্দারা বাধা দেন। খবর দেওয়া হয় ” কুলিক নদী বাঁচাও ” কমিটির সদস্যদের। খবর দেওয়া হয় রায়গঞ্জ থানায়। এরপর রায়গঞ্জ থানার পুলিশ ও স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার লোকজন ঘটনাস্থলে চলে আসে। আটক করা হয় ভ্যানচালকদের। স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা হিমালয়ান মাউন্টেনিং অ্যাসোসিয়েশনের সম্পাদক কৌশিক ভট্টাচার্য বলেন, ” আমরা কুলিক নদীর প্রাণ ফিরিয়ে দিতে দীর্ঘদিন ধরে লড়াই চালিয়ে যাচ্ছি। নদীকে আবর্জনামুক্ত করতে বহুবার নদী সাফাই অভিযানেও নেমেছি। অথচ ওই বেকারি সংস্থা নদী দূষণ করতেই নোংরা আবর্জনা ফেলছে। আমরা ওই বেকারির মালিকের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য রায়গঞ্জ থানায় লিখিত অভিযোগ জানিয়েছি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *