১ টাকার কয়েন নিয়ে নয়া সংকট দক্ষিণ দিনাজপুরে




বালুরঘাট, ২ অক্টোবর : এবারে নয়া সংকট দেখা দিলো ছোট আকারের ১ টাকার কয়েন নিয়ে। অচল নয়, তবুও কয়েন গুলি চলছেনা বাজারে বালুরঘাটের বাজারে। মাস দুই তিনেক আগে ১ থেকে ১০ টাকার কোনো কয়েনই চলছিল না বাজারে। অবশেষে প্রশাসনের হস্তক্ষেপে সেই সমস্যা অনেকটা মিটেছে। খাড়া হয়েছে ছোট ১ টাকার কয়েক চলা নিয়ে নয়া সংকট।




নোট বাতিলের সময় থেকেই দক্ষিণ দিনাজপুরে প্রথম গুজব ছড়িয়েছিল ১০ টাকার কয়েন বাতিল হয়েছে। ফলে সেগুলো আর নেওয়া যাবে না। গুজবটি ভাইরাল হতেই ব্যবসায়ী থেকে সাধারন মানুষ কেউ নিতে চাইছিল না ১০ টাকার কয়েন। অবশেষে প্রশাসনের হস্তক্ষেপে সমস্যা মেটে। এরপর নোটবাতিলের সময় বাজারে ছাড়া হয় প্রচুর ১, ২, ৫ ও ১০ টাকার কয়েন। রিজার্ভ ব্যঙ্ক থেকে গাড়ি গাড়ি ওই কয়েন আসে জেলার স্টেট ব্যাঙ্কগুলিতে। ফলে প্রত্যেকেরই কাছে কম বেশী খুচরো জমতে থাকে। এরমধ্যে আবার গুজব ছড়িয়ে পরে কয়েন চলছেনা বলে। এমনকি খুচরো কয়েন জমা নিতে অস্বীকার করে ব্যাঙ্ক গুলিও। খুচরো নিয়ে থানায় দারস্থ হয় প্রচুর মানুষ। বিষয়টি প্রকাশ্যে আসতেই রিজার্ভ ব্যাঙ্কের নির্দেশে ব্যাঙ্ক নেওয়া শুরু করে সমস্ত ধরনের কয়েকন। বাজারেও স্বাভাবিক পরিস্থিতি তৈরি হয় কয়েন নেওয়া নিয়ে। কিন্তু কিছু দিন ধরে ফের নয়া সঙ্কট তৈরি হয়েছে বালুরঘাট সহ দক্ষিণ দিনাজপুর জেলায়। এদিকে খুচরো ছোট ১ টাকার কয়েন যে ভাবে ব্যবসায়ী থেকে সাধারণ মানুষের কাছে জমেছে তাতে সমস্যা বাড়ছে দ্রুত। খুচরো সমস্যায় প্রয়োজনের তুলনায় বেশি সামগ্রী কিনতে হচ্ছে গ্রাহকদের। ভাইরাল ছোট ১ টাকার কয়েন নিতে অস্বীকার করছে বালুরঘাট শহরের টোটো চালক থেকে কাগজ বিক্রেতা, পানের দোকানদার, সবজি বিক্রেতা।

প্রবীর দাস নামে এক ব্যবসায়ী জানান, তারাও ছোট এক টাকার কয়েন নিচ্ছেন না কারণ মহাজনরা ওই টাকাতে নিতে অস্বীকার করছেন। সকলে নিলে তারাও নেবেন। অনেক পণ্য রয়েছে যেগুলিতে খুচরো পয়সার দামে। বড় ১ টাকার কয়েন দিলে তা বিক্রিতে সমস্যা নেই। কিন্তু অধিকাংশ মানুষের হাতেই দেখা যাচ্ছে ছোট ওই কয়েন। নিত্যদিন ক্রেতাদের সঙ্গে বচসায় জড়িয়ে তাদেরই ক্ষতি হচ্ছে। কিন্তু উপায় নেই।

বালুরঘাট ব্যবসায়ী সমিতির সম্পাদক হরেরাম সাহা বলেন, প্রশাসন এবং ব্যাঙ্ক একমাত্র এই সমস্যার সমাধান করতে পারে। সুতারাং তাদের এগিয়ে এসে এই সঙ্কট মেটানো প্রয়োজন।

অন্য দিকে এবিষয়ে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বালুরঘাটের একটি রাষ্ট্রায়াত্ত ব্যাঙ্কের ম্যানেজার জানান, তারা গ্রাহকদের কাছ থেকে সব ধরনের খুচরো টাকা জমা নিচ্ছেন। তবে ব্যবসায়ী ছোট ১ টাকার খুচরো কয়েন নিচ্ছেন না তা জানা নেই। এক টাকা থেকে শুরু কোনো কয়েন অচল নেই বলেই দাবি ব্যাঙ্ক আধিকারিকের। বিষয়টি নিয়ে প্রশাসনের সঙ্গে একযোগে প্রচার চালানো হবে বলে ব্যাঙ্কের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।





Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!