বারুদের স্তুপের ওপর দাঁড়িয়ে আমডাঙ্গা এলাকায় ঢুকতে দেওয়া হল না অধীর রজ্ঞন চৌধুরীকে।




উত্তর ২৪ পরগনা,৮ সেপ্টেম্বর:আমডাঙার বহিসগাছি ঘোষপাড়া গ্রামে এক CPI(M) নেতার বাগানবাড়িতে বোমা কারাখানার হদিশ পেল পুলিশ। ওই নেতা ইলিয়াস খানের বাগানবাড়ি থেকে আজ প্রায় এক হাজার বোমা উদ্ধার করা হয়েছে বলে পুলিশের দাবি। পাশাপাশি বোমা তৈরির বিপুল পরিমাণ মশলাও পাওয়া গেছে। আরও বোমা আছে কি না তার খোঁজে তল্লাশি চলছে। অভিযুক্ত CPI(M) নেতাকে পুলিশ এখনও ধরতে পারেনি। তার খোঁজ চলছে। ঘটনাস্থানে পৌঁছেছে বম্ব স্কয়্যাড।




২৮ অগাস্ট পঞ্চায়েতের বোর্ড গঠনের আগের রাতে CPI(M)-তৃণমূল সংঘর্ষে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে আমডাঙার বহিসগাছি গ্রাম। দু’পক্ষের সংঘর্ষে তিনজনের মৃত্যু হয়। জখম হন ২৮ জন। পরিস্থিতি উদ্বেগজনক হয়ে ওঠায় জেলাশাসক অন্তরা আচার্য আমডাঙার তারাবেড়িয়া, বোদাই ও মারিচ পঞ্চায়েতের বোর্ড গঠন স্থগিত ঘোষণা করেন। সংঘর্ষের রাতে পুলিশ গ্রামে ঢুকতে পারেনি। পরের দিন ২৯ অগাস্ট সকালেই গ্রামে পুলিশ, RAF ও কমব্যাট ফোর্স গ্রামে ঢোকে। ঘটনার ব্যাপকতা উপলব্ধি করে গ্রামে পৌঁছান IG (দক্ষিণবঙ্গ) নীরজ সিং। শাসকদলের নেতা তথা খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক অভিযোগ করেছিলেন, বাংলাদেশ থেকে অস্ত্র আমদানি করেছে CPI(M)। যদিও IG সন্ত্রস্ত বহিসগাছি গ্রামে দাঁড়িয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে বলেছিলেন, গ্রামেই বোমা তৈরি করা হয়েছে। সেদিন তিনি অস্ত্র উদ্ধারে লাগাতার তল্লাশি অভিযানের নির্দেশ দিয়েছিলেন। তার পর থেকে নাগাড়ে চলছে অভিযান।

সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের আমডাঙা সফরের আগের দিন বহিসগাছি গ্রাম থেকে বেশ কিছু বোমা উদ্ধার হয়। আজ আমডাঙায় ছিল কংগ্রেস নেতা অধীর চৌধুরির থানা ঘেরাও কর্মসূচি। পথেই অধীরকে আটকায় পুলিশ। ঠিক সেই সময় আমডাঙা থানা থেকে প্রায় ১৩ কিলোমিটার দূরে বহিসগাছি গ্রামের ঘোষপাড়ায় CPI(M)-এর নেতা ইলিয়াস খানের বাগানবাড়িতে পুলিশ বোমা তৈরির কারখানার হদিশ পেল। ওই বাগানবাড়িতে বিভিন্ন আকারের প্লাস্টিকের ড্রামে প্রায় এক হাজার বোমা মজুত করা ছিল বলে পুলিশের দাবি। শুধু বোমাই নয়, উদ্ধার হয়েছে বোমা তৈরির মশলাও। বোমা নিষ্ক্রিয় করতে ঘটনাস্থানে পৌঁছায় বম্ব স্ক্যয়াড।

উত্তর ২৪ পরগনা CPI(M)-এর জেলা সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য সুভাষ মুখোপাধ্যায় অবশ্য ঘটনাটি পুলিশের সাজানো বলে অভিযোগ তুলেছেন। তিনি বলেন, “ইলিয়াস নামে ওখানে আমাদের কোনও নেতা নেই। পুলিশ কাউকে সাজিয়ে দিতে পারে। একটু গভীরে খোঁজ নিলে সব সত্যি খবর পেয়ে যাবেন। ওখানে কারা বোমা মজুত করছে, তা জানতে পারবেন।




You May Also Like

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!