পেট্রোল-ডিজেলের উপর জিএসটি চালুর দাবিতে ট্রাক মালিকদের ধর্মঘট

ওয়েব ডেস্ক: প্রায় প্রত্যেকদিনই বাড়ছে-কমছে পেট্রোল-ডিজেলের দাম। ব্যবসা সামলাতে নাজেহাল ট্রাক মালিকরা। সেই সঙ্গে রাস্তাঘাটে রয়েছে ট্রাফিক পুলিশের অন্যায় আবদার। যা দিনের পর দিন বেড়েই চলেছে। এরই প্রতিবাদে সোমবার থেকে ধর্মঘটে সামিল হল অল ইন্ডিয়া মোটর ট্রান্সপোর্ট কংগ্রেস(AIMTC)। সংগঠনের দাবি, ডিজেলের দামের উপর যথাযথ নিয়ন্ত্রণ রাখতে হবে সরকারকে। এই জ্বালানির উপরও বসাতে হবে গুডস অ্যান্ড সার্ভিসেস ট্যাক্স ওরফে জিএসটি। পাশাপাশি রাস্তায় ট্রাক মালিকদের উপর অনৈতিক পুলিশের জুলুম রুখতে হবে। এই মর্মে ৯ ও ১০ তারিখ ‘চাক্কা জাম’-এর ডাক দিয়েছে AIMTC।

দেশের প্রায় ৯৩ লক্ষ ট্রাক মালিক এই সংগঠনের আওতাভুক্ত বলে জানা গিয়েছে। এই ধর্মঘটের ফলে পণ্য পরিবহণ ভীষণভাবে ব্যাহত হওয়ার আশঙ্কা করেছেন ব্যবসায়ীরা। এমনিতে বৃষ্টিতে বিপর্যস্ত বাংলা। এরমধ্যে ট্রাক ধর্মঘটের জেরে পণ্য সময়মতো গন্তব্যে না পৌঁছলে ব্যবসায় ভীষণ ক্ষতি হতে পারে। এর প্রভাব সরাসরি বাজারে পড়তে পারে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। বাড়তে পারে জিনিসপত্রের দাম। AIMTC -এর পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, সরকারের কানে কথা পৌঁছানোর জন্য মাত্র দু’দিনের এই বন্ধ ডাকা হয়েছে। সামনেই দীপাবলি। তখন জিনিসপত্রের প্রচুর চাহিদা থাকবে। তাই দু’দিনের ধর্মঘটের পর স্বাভাবিকভাবেই সমস্ত ট্রাক চলবে। কিন্তু দীপাবলির পরও সরকার ট্রাক মালিকদের দাবি না মানলে অনির্দিষ্ট সময়ের জন্য ধর্মঘটে যাওয়ার হুমকি দেওয়া হয়েছে।

এদিকে ১৩ অক্টোবর ধর্মঘটে যাওয়ার কথা ঘোষণা করেছে দেশের প্রায় ৫৪০০০ পাম্প মালিক। পেট্রোল-ডিজেলের দামের হারের নিত্য পরিবর্তন পাম্প মালিকদেরও মাথা ব্যাথার কারণ হয়ে উঠেছে। এর যথাযথ সমাধান চান তারা। না হলে ২৭ অক্টোবর থেকে তারাও স্থায়ীভাবে পাম্প বন্ধ রাখার হুমকি দিয়েছেন।


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *