মাদক মেশানো ক্যান্ডি খেয়ে অসুস্থ স্কুল পড়ুয়া

ওয়েব ডেস্ক: পাঞ্জাবের একটি প্রজন্মকে প্রায় শেষ করে দিয়েছিল মাদক। এবার সেই মাদকের ভয়াবহ জাল ছড়াচ্ছে পশ্চিমবঙ্গেও। নিশানায় রাজ্যের পড়ুয়ারা।

পুলিশ সূত্রে খবর, রাজ্যের বিভিন্ন স্কুলে একটি দুষ্টচক্র ছড়িয়ে দিচ্ছে মাদকের মারণ বীজ। “স্ট্রবেরি কুইক” নামে ক্যান্ডির মাধ্যমে স্কুলের পড়ুয়াদের আসক্ত করে তোলা হচ্ছে মাদক সেবনে। জানা গিয়েছে, স্ট্রবেরির স্বাদযুক্ত ওই ক্যান্ডিগুলি কলকাতা সহ রাজ্যের একাধিক স্কুলে পড়ুয়াদের মধ্যে অবাধে বিলি করা হচ্ছে। এমনকি বেশ কয়েকটি নতুন স্বাদের ক্যান্ডিও বাজারে ছড়িয়েছে। বিশেষ সূত্রে খবর, মাদক মেশানো ওই ক্যান্ডি খেয়ে ইতিমধ্যে অসুস্থ হয়ে পড়েছে বেশ কয়েকজন পড়ুয়া। কয়েকজনকে হাসপাতালে ভর্তিও করা হয়েছে।

পুলিশের “নার্কোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরো”র গোয়েন্দারা জানিয়েছেন, স্ট্রবেরি ছাড়াও অরেঞ্জ, চেরি, আঙুর, বাটার সহ বিভিন্ন স্বাদে মিলছে মাদক মেশানো ক্যান্ডি। ওই ক্যান্ডি খাওয়ার পর একাধিক পড়ুয়াকে অস্বাভাবিকভাবে ঘুমোতে দেখা যায়। অনেকেই বমি করতে শুরু করে। জানা গিয়েছে, পড়ুয়াদের নেশার জালে জড়িয়ে ফেলতে ক্যান্ডিগুলিতে আফিম মেশানো হয়। এছাড়াও অন্য কোনও ড্রাগসও মেশানো হতে পারে বলে মনে করছেন গোয়েন্দারা।

শুধু পশ্চিমবঙ্গে নয়, সম্প্রতি মাদক মেশানো ক্যান্ডির খোঁজ মিলেছে মুম্বই ও বেঙ্গালুরুর একাধিক স্কুলে। ফলে এই চক্রান্তের নেপথ্যে একটি আন্তর্জাতিক মাদক পাচার চক্র রয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে। এই বিষয়ে স্কুলগুলিতে সতর্কবার্তা জারি করেছে পুলিশ প্রশাসন। স্কুল চত্বরে এমন কোনও সন্দেহজনক বস্তু দেখলে সঙ্গে সঙ্গে পুলিশে জানানোর নির্দেশও দেওয়া হয়েছে। এছাড়াও অভিভাবকদেরকেও সতর্ক থাকতে বলা হয়েছে।

উল্লেখ্য, কয়েকদিন আগেই স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে মাদক পাচার সংক্রান্ত একটি রিপোর্ট পেশ করেন কেন্দ্রীয় গোয়েন্দারা। ওই রিপোর্ট মোতাবেক পাঞ্জাবে ভারত-পাক সীমান্ত ও পশ্চিমবঙ্গে ভারত-বাংলাদেশ সীমান্ত হয়ে রমরমিয়ে চলেছে মাদক পাচার চক্র। পোস্ত চাষের জন্য মালদহ জেলা ভারতের ‘আফগানিস্তান’ হয়ে দাঁড়িয়েছে। মাদকযুক্ত ক্যান্ডি নিয়ে তদন্ত শুরু করেছে লালবাজার। যদিও এখনও পর্যন্ত কাউকে গ্রেপ্তার করা যায়নি।


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *