চাঁচলেরর মহানন্দা নদীতে নৌকা ডুবির ঘটনায় প্রায় ৫০ জন যাত্রী নিখোঁজ




মালদা,৩ অক্টোবর:চাচোলেরর মহানন্দা নদীতে নৌকা ডুবির ঘটনায় প্রায় ৫০ জন যাত্রী নিখোঁজ হওয়ায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে।  ইতিমধ্যে অসমর্থিত সূত্র অনুযায়ী , পাঁচ জনের দেহ উদ্ধার হয়েছে। যদিও জেলাশাসক কৌশিক ভট্টাচার্য্য জানিয়েছেন, দুইজনের মৃতদেহ উদ্ধার হয়েছে। দশজনকে নদীতে ডুবার হাত থেকে অসুস্থ অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে । চার থেকে পাঁচজন নিখোঁজ রয়েছে।  তাদের খোঁজ চালানো হচ্ছে।




বৃহস্পতিবার রাত সাতটা নাগাদ ঘটনাটি ঘটেছে চাচল থানার জগন্নাথপুর এলাকার মহানন্দা নদীতে।  নদীর ওপারে উত্তর দিনাজপুরের ইটাহার থানার মুকুন্দপুর গ্রাম। মুকুন্দপুরের মহানন্দা নদীর ঘাটে চাচোলের জগন্নাথপুর গ্রামের প্রায় ৫০ জন যাত্রী বাইচ প্রতিযোগিতা দেখতে নৌকা করে এপার থেকে ওপারে যাচ্ছিলেন। সেই সময় ভরা মহানন্দা নদীতে নৌকা ডুবির ঘটনাটি ঘটে। এদিকে এই ঘটনার পর চাচোলের জগন্নাথপুর এলাকার মহানন্দা নদীর ঘাটে পৌঁছায় দুর্যোগ মোকাবিলা দপ্তরের কর্মীরা। পাশাপাশি এলাকায় মোতায়েন রয়েছে চাচোল থানার বিশাল পুলিশ বাহিনী।  ঘটনাস্থলে রয়েছেন চাচোলের এসডিপিও সজল কান্তি বিশ্বাস এবং মহকুমাশাসক সব্যসাচী রায়।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে , বৃহস্পতিবার রাত সাতটা নাগাদ চাচল থানার মহানন্দপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের জগন্নাথপুর ঘাটের অপরপ্রান্তে ইটাহার থানার মুকুন্দপুর ঘাট। ওই এলাকায় একটি বাইচ প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়েছিল। ওই বাইচ প্রতিযোগিতা দেখার জন্য মহানন্দপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের জগন্নাথপুর, মল্লিকপাড়া সহ তিন থেকে চারটি গ্রামের প্রায় ৫০ জন মানুষ  এদিন জগন্নাথপুর ঘাট থেকে একটি নৌকো করে মুকুন্দপুর ঘাটের উদ্দেশ্যে রওনা দেয়। ওই সময় মহানন্দার মাঝ নদীতে হঠাৎই নৌকা উল্টে যায়।  অতিরিক্ত যাত্রী থাকার ফলে নৌকাডুবির ঘটনাটি ঘটেছে বলে স্থানীয় গ্রামবাসীদের অভিযোগ।

 

উত্তরবঙ্গ ভারী বৃষ্টির ফলে মহানন্দা নদীতে এখন জল বেশি থাকার কারণে নৌকা যাত্রীদের আর উদ্ধার করা যায় নি। কয়েকজন যাত্রী শুধু সাঁতরে কোনরকমে প্রাণে বেঁচেছেন।  বাকি যাত্রীরা এখনো নিখোঁজ রয়েছে বলে প্রশাসন সূত্রে খবর। এদিকে দুইজন যাত্রীর দেহ উদ্ধার করেছে স্থানীয় বাসিন্দারা।

জগন্নাথপুর এলাকার নৌকা ডুবির হাত থেকে উদ্ধার হওয়া এক যাত্রী গোবিন্দ মন্ডল বলেন,  যন্ত্রচালিত নৌকায় অতিরিক্ত যাত্রী তুলেছিলেন মাঝি। অনেক বারণ করা সত্ত্বেও তিনি কথা শোনেন নি।  বর্ষার মরশুমে মহানন্দা নদী অনেকটাই বিস্তীর্ণ রয়েছে। এই অবস্থায় মাঝ নদীতে গিয়ে ওই নৌকাটি টালমাটাল খেয়ে উল্টে যায় । কয়েকজন শিশু মহিলারা ওই নৌকায় ছিল। প্রত্যেকে গ্রাম থেকে বাইচ প্রতিযোগিতা দেখতে যাচ্ছিলাম।  মুহুর্তের মধ্যে সব ওলটপালট হয়ে গেল। কোনরকমে সাঁতরে জগন্নাথপুর ঘাটে উঠেছি। বুঝে উঠতে পারছিনা এখন কি হবে। 




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!