পর্যাপ্ত ব্যবস্থা নেই, আতঙ্কে মেখলিগঞ্জের তিস্তা চরবাসি




মেখলিগঞ্জ, ৮জুলাই: বাড়ছে তিস্তার জল , পর্যাপ্ত ব্যবস্থা আগাম না থাকায় আতঙ্কে কয়েকশত পরিবার৷ নদীর উচ্চ অববাহীকায় ভারি বৃষ্টির জেরেই প্রতিবছরের মত এবারও বাড়ছে তিস্তার জল৷ যদিও উত্তর পূর্ব ভারতের অন্যতম বন্যা প্রবণ তিস্তা নদীর বন্যা কবলিত বা বিশেষ বন্যাপ্রবণ এলাকা গুলিতে কেন্দ্রীয় এবং রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে বিশেষ ব্যবস্থা রাখা হয়।  ভারতের কোচবিহার জেলার মেখলিগঞ্জ মহকুমার তিস্তা চরের চিত্র টা একটু অন্য রকম। এই তিস্তা নদীর চরের অধিকাংশ বাসিন্দা যাদের প্রশাসনিক এলাকাগত দিক থেকে মেখলিগঞ্জ ব্লকের নিজতরফ গ্রাম পঞ্চায়েত এর অন্তর্গত।




 

তিস্তার অন্যতম চর গুলির মধ্যে কোচবিহার জেলার নিজতরফ গ্রাম পঞ্চায়েত এর তিস্তার বুকে জেগে ওঠা চরটি অত্যন্ত বন্যাপ্রবণ এবং অধিবাসীদের কাছে সবচেয়ে বড় অসহায় চিত্র দেখা যায়। মূলত মাঝ নদীতে এদের বাসভূমি। জীবন জীবিকার ধরন পুরোটাই নদীকেন্দ্রিক। চরবাসিদের জীবিকা নির্বাহের জন্য পলিমিশ্রিত উর্বর কৃষি জমিতে ফসল ফলিয়ে এবং নদীর জলের মাছ ধরে দিনযাপন করা এদের মূল জীবিকা। বন্যার জলের সাথে মিশে থাকা পলি জমিগুলোর ওপরদিয়ে যাবার সময় আটকে যায়, ফলে জমিতে ধান, পাট, আলু, বাদাম চাষ হয়। বাসিন্দাদের মধ্যে অনেকেই জমিতে বছরে দুট ফসল ফলিয়ে গোটা বছরের অন্ন জোগাড় করে। আবার অনেকেই মাঝ নদীতে মাছ ধরে মেখলিগঞ্জ বা হলদিবাড়ি শহরে নিয়ে যান। এই দুটি পেশায় কোন ক্রমে দিন যাপন করেন চরের অধিবাসীরা। কিন্তূ, জীবনের চরম বিপদের দিন অতি বৃষ্টির জলে যখন তিস্তার জল বাড়তে থাকে, তখন চর বাসীর জীবন হয়ে উঠে কঠিন, প্রাকৃতির কাছে কতটা অসহায় চরবাসি তার ছবি ধরা পরে৷

 

বর্ষার শুরুতে কিছুটা দিন চরের মধ্যেই বিপদ আর জীবন মরণ ফাঁদ থাকা সত্তেও ঝুঁকি বুজেও কোন কোন পরিবার থেকেই যান চড়ের মধ্যেই৷ আবার কোন কোন পরিবার প্রাণ বাঁচানোর জন্য আগাম আশ্রয় নেন তিস্তা বাঁধের ধারে। গতবারের বন্যা পরিস্থিতি ভয়াবহ অভিজ্ঞতা তিস্তা চড়ের মানুষ ভুলতে পারেনি। এবারের বর্ষার শুরুতে তিস্তার জল বাড়ছে, জলবাড়তে থাকায় চরের অনেক বাসিন্দাই আতঙ্কে আছেন। সূত্রে খবর এখনও পর্যন্ত পর্যাপ্ত নৌকা বা বিপর্যয় মোকাবিলার কোন প্রকার ব্যবস্থা রাখা হয়নি সরকারের পক্ষ থেকে৷ বিপর্যয় মোকাবিলার উপযুক্ত ব্যবস্থা নেই বলতেই চলে।

 

এমনই অভিযোগ তিস্তা চরের বাসিন্দাদের৷ তারা জানান, জল যেভাবে বেড়েই চলছে মানুষ সহ গৃহপালিত পশু সবই সমস্যায় আছে। প্রশাসনকে জানান হয়েছে, তবে এখনও কোন রূপ ব্যবস্থা করা হয়নি বলে অভিযোগ জানান। সূত্রে খবর, তিস্তা চড়ের সাথে তিস্তা বাঁধ সংলগ্ন বিপদ সংকুল এলাকার জন্য আগাম ব্যবস্থা বা পরিকাঠামো থাকার কথা, কিন্তূ তেমন কোন ব্যবস্থা এখনও করেননি জেলা বা ব্লক প্রশাসনের কাছে এমন ক্ষোভ অধিবাসীদের৷ এই মুহুর্তে, যার জেরে আতঙ্ক নিয়ে আছে তিস্তা চড়ের জনজীবন।

 

ব্লক প্রশাসন এবং মেখলিগঞ্জ পৌর সভার পক্ষ থেকে জানান হয় পরিস্থিতি সামাল দেবার জন্য প্রশাসন তৈরি৷ নজর রাখা হচ্ছে তিস্তা জলের ওপর, প্রয়োজনীয় সব ব্যবস্থা করা হবে। তবে মেখলিগঞ্জ পৌরসভা এবং স্থানীয় গ্রামপঞ্চায়েত সূত্রে জানা যায়, আগাম কোন ব্যবস্থা না থাকলেও দুর্গত মানুষের সেবার জন্য তৈরি স্থানীয় প্রশাসন।

 




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!