লক্ষ্মী শুধু নামেই লক্ষ্মী নয়, অনাথ লক্ষ্মী খুঁজে পেল নিজের ঠিকানা




জলপাইগুড়ি,১৯ আগস্ট:লক্ষ্মী শুধু নামেই লক্ষ্মী নয়, গুনেও সে লক্ষ্মী। তাই লক্ষ্মী দিদির বিদায়ের পরে বিষণ্ন জলপাইগুড়ি অনুভব হোমের আবাসিকাদের মন। বৃহস্পতিবার জেলা পরিষদের প্রত্যাশা ভবনে ছিল লক্ষ্মীর বিয়ে। অনাথ লক্ষ্মী খুঁজে পেল নিজের ঠিকানা।




রায়গঞ্জের বাসিন্দা স্বাস্থ্য দপ্তরের কর্মী রাজীব পাল নিজের স্ত্রী হিসাবে যোগ্যসন্মান দিয়ে বিয়ে করে নিয়ে গেলেন লক্ষ্মীকে। অনুভব হোম সূত্রে জানা যায়, রাজ্যের বিভিন্ন হোম ঘুরে চার বছর আগে অনুভব হোমে এসেছিলেন লক্ষ্মী। ১৮ বছর হয়ে যাওয়ায় কর্মী হিসাবে লক্ষ্মীকে রেখে দিয়েছিলেন হোম কর্তৃপক্ষ। বিগত দেড় বছর যাবত লক্ষ্মী হোমের রাঁধুনীর পরিচয়ে ছিলেন। লক্ষ্মী খুব সুন্দর এবং অনেক ধরনের রান্না করতে জানেন। শহরের কর্মতীর্থ ভবনে তিনি একটি ক্যান্টিন চালাতেন। এরই পাশাপাশি লক্ষ্মী তাইকন্ডোতে পারদর্শী। শিখেছেন গাড়ি চালানো, বিউটিশিয়ানের কাজও। এমন গুনবন্তী বউকে পেয়ে খুশী লক্ষ্মীর শ্বশুরবাড়ির লোকেরা।

বৃহস্পতিবার লক্ষ্মী আর রাজীবের বিয়ে উপলক্ষে প্রত্যাশা ভবনে বসেছিল চাঁদের হাট। শ’পাঁচেক নিমন্ত্রিতদের মধ্যে ছিলেন পুলিশ সুপার অমিতাভ মাইতি, কোতয়ালী থানার আইসি বিশ্বাশ্রয় সরকার, সমাজসেবী করিমুল হক থেকে শুরু করে ক্রীড়া জগতের ব্যাক্তিত্ব, চিকিৎসক, ব্যবসায়ী সহ সমাজের বিভিন্ন অংশের মানুষেরা। বিয়ের আয়োজনে ছিল না কোন খামতি। সবমিলিয়ে এক অনন্য মুহূর্তের স্বাক্ষী হয়ে রইলো জলপাইগুড়ি।




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!