কথা রাখলেন মুখ্যমন্ত্রী, আফরাজুলের স্ত্রীর হাতে পৌঁছল নিয়োগপত্র




মালদা, ১০জুলাই: মুখ্যমন্ত্রী যে সত্যিই মমতাময়ী তাঁর প্রমাণ মিলল আবারও। শত ব্যাস্ততার মধ্যেও নিজের দেওয়া প্রতিশ্রুতি তিনি ভোলেননি।মুখ্যমন্ত্রী এখনও উত্তরবঙ্গ সফরত। সফর চলাকালীন তিনি দ্রুত জেলা শাসককে আফরাজুলের পরিবারের হাতে চাকরীর নিয়োগপত্র দেওয়ার নির্দেশ দেন। সেই মত মঙ্গলবার মালদা জেলা শাসক কৌশিক ভট্টাচার্য আফরাজুলের স্ত্রী গুলবাহার বেওয়াকে জেলা প্রশাসনিক ভবনে আসতে বলেন।




জেলা শাসক ও ইংরেজবাজারের বিধায়ক নিহার রঞ্জন ঘোষ আফরাজুলের স্ত্রীর হাতে তাঁর মেয়ে রেজিনা খাতুনের চাকরীর নিয়োগপত্র তুলে দেন। ৭দিনের মধ্যে রেজিনা খাতুনকে চাকুরীতে যোগদান করতে বলেন জেলা শাসক। শিশু ও নারী উন্নয়ন দপ্তরের সহায়ক পদে আফরাজুলের মেয়ে রেজিনা খাতুনকে নিয়োগপত্র দেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি মৃত শ্রমিক আফরাজুলের স্ত্রীকে বিধবা ভাতা দেওয়া হয়েছে।

আফরাজুলের স্ত্রী গুলবাহার বেওয়া বলেন, “আমার পরিবারের পাশে থাকবার জন্য মুখ্যমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানাই। তিনি না থাকলে আমরা অনাহারে মারা যেতাম”। মালদা জেলা শাসক কৌশিক ভট্টাচার্য বলেন, “মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে আফরাজুলের মেয়ে রেজিনা খাতুনকে শিশু ও নারী উন্নয়ন দপ্তরের সহায়ক পদের নিয়োগপত্র দেওয়া হল। নিয়োগপত্রটি আফরাজুলের স্ত্রীর হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, গত ডিসেম্বর মাসে রাজস্থানে শ্রমিকের কাজ করতে গিয়ে নৃশংসভাবে খুন হয় কালিয়াচকের সৈয়দপুর এলাকার আফরাজুল সেখ। খুনের লাইভ ভিডিইয়ো সোশ্যাল মিডিয়ায় মাধ্যমে গোটাদেশে ছড়িয়ে পড়ে। মৃত শ্রমিকদের বাড়িতে ছুটে আসেন রাজ্যের একাধিক নেতামন্ত্রী ও আমলারা। মুখ্যমন্ত্রী আর্থিক সাহায্য ও চাকুরীর প্রতিশ্রুতি দেন। তা আজ পূর্ণতা পেল।




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!