প্রত্যন্ত গ্রামে লুকিয়ে প্রতিভা, এমনই এক প্রতিভার খোঁজ পাওয়া গেল নদীয়াই




নদিয়া,২৭ নভেম্বর:প্রত্যন্ত গ্রামে লুকিয়ে প্রতিভা, এমনই এক প্রতিভার খোঁজ পাওয়া গেল নদীয়ার তেহট্ট থানার খাসপুর গ্রামের ছোট্ট শিশু কুশল দাসের। বয়স ৫ বছর ৭ মাস। ঢাকের বাজনার বিভিন্ন বোল সকলের মন জয় করে নিয়েছে।




সে এখন গ্রামের সকলের প্রিয় পাত্র। গ্রামের অঙ্গনওয়াড়ি কেন্দ্রে নিত্য যাতায়াত এর ফলে পড়াশোনায় হাতেখড়ি, গত ছয়মাস থেকে গ্রামের খাসপুর প্রাথমিক বিদ্যালয় পড়াশোনা শুরু করেছে। বয়স না হওয়ার কারণে এখনও স্কুলের খাতায় তার নাম নথিভুক্ত হয়নি। ঢাকের বাজনার সাথে পড়াশোনায় মনোযোগী , কুশলের মা তারা মনি দাস বলেন আমার দুই ছেলের মধ্যে ও ছোট, স্বামী কর্মসূত্রে রাজ্যের বাইরে থাকে।ছোটবেলা থেকেই বাজনার দিকে ওর একটা ঝোঁক।

হাতের কাছে থালা ঘটি-বাটি যাই পেত সেটা ধরে বাজাতে শুরু করত। তাই ওর বাজনার আগ্রহ দেখে গ্রামের মেলা থেকে একটি ঢাক কিনে দেই। তখন তার বয়স মাত্র দু’বছর সবে হাঁটতে শুরু করেছে। মেলা থেকে কিনে দেওয়ার ঢাকটি ছিল তার নিত্যসঙ্গী, ওটাই ছিল তার ধ্যান-জ্ঞান। গ্রামের রাস্তা দিয়ে কোন ব্যান্ড পার্টি কিংবা বিসর্জন যেকোনো ধরনের বাজনা শুনতে পেলে বাড়িতে বসে সেই বোলেই মেলা থেকে কিনে দেয়া ডাকটি সুন্দর পরিষ্কারভাবে বোল তুলে বাজায়।

ও কোনদিন কারো কাছে প্রশিক্ষণ নেয়নি। আমার শ্বশুর বাড়িতে কোন বাদ্যযন্ত্র কিংবা কোন বাজনা দলের সাথে কেউই যুক্ত নয়। তবে হ্যাঁ ধর্মদার বহিরগাছিতে আমার বাবার বাড়ির পেশা ঢাক বাজানো, হয়তো জিনগত কারণে ওর দাদুর বাড়ির সমস্ত গুণ ওর মধ্যে আছে। যেহেতু আমার বাবার বাড়ি ঢাক তৈরীর ব্যবসা রয়েছে তাই এ বাজনার কথা শুনে আমার বাবা তার নাতি কুশল কে একটি ঢাক বানিয়ে দেন। সময় পেলেই ঢাক বাজিয়ে বিভিন্ন ধরনের বোল তোলে কুশাল ।




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!