ভোট স্থগিতাদেশের জটে আটকে ফ্ল্যাগ, ফেস্টুন-ব্যানার,সমস্যায় ব্যবসায়ীরা







রায়গঞ্জ, ১৭ এপ্রিল: পঞ্চায়েত ভোট স্থগিতাদেশের জটে আটকে পড়েছে হাজার হাজার ফ্ল্যাগ, ফেস্টুন, ব্যানার ও ফ্লেক্স। সমস্যায় ফ্লেক্স ও ব্যানার তৈরির ব্যাবসায়ীরা। তৈরি করা ফ্লেক্স ব্যানার ঘরে পড়ে রয়েছে, নিচ্ছেননা কোনও প্রার্থীই। ফলে কর্মচারীদের বেতন দেওয়া থেকে নানান সমস্যায় পড়েছেন তারা। পঞ্চায়েত ভোট নিয়ে উচ্চ আদালত কি রায় দেন তার উপর নির্ভর করছে এইসব ব্যাবসায়ীদের ফ্লেক্স ব্যানারের ব্যবসা।





 

আগামী ৫ মে উত্তর দিনাজপুর জেলায় হবে পঞ্চায়েত ভোট। রাজ্য নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে পঞ্চায়েত ভোটের দিনক্ষণ ঘোষনা হবার পরেই শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেস, বিজেপি, কংগ্রেস ও বামফ্রন্টের নিশ্চিত প্রার্থীরা তাদের সমর্থনে ফ্ল্যাগ, ফেস্টুন, ব্যানার ও ফ্লেক্স তৈরির অর্ডার দিয়েছিলেন।

অর্ডার পেয়েই ফ্লেক্স ব্যবসায়ীরা তৈরি করেছেন হাজার হাজার ফ্লেক্স ও ব্যানার। কিন্তু পঞ্চায়েত নির্বাচন নিয়ে রাজ্যের বিরোধী দলগুলি দ্বারস্থ হয় আদালতের। রাজ্যের উচ্চ আদালত পঞ্চায়েত নির্বাচন নিয়ে স্থগিতাদেশ জারি করে।

পঞ্চায়েত নির্বাচনে স্থগিতাদেশ জারি হওয়ার ফলে মাথায় হাত পড়েছে উত্তর দিনাজপুর জেলার ফ্লেক্স ব্যবসায়ীদের। বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের অর্ডার অনুযায়ী রায়গঞ্জের ফ্লেক্স ব্যবসায়ীরা প্রার্থীদের সমর্থনে হাজার হাজার ফ্লেক্স ও ব্যানার তৈরি করে ফেলেছিলেন।

ভোটের স্থগিতাদেশ থাকায় এখন আর ফ্লেক্স ব্যানারের প্রয়োজন হচ্ছেনা রাজনৈতিক দলগুলির। ফলে ফ্লেক্স ব্যবসায়ীদের ঘরে জমে রয়েছে হাজার হাজার ফ্লেক্স ও ব্যানার। প্রার্থীরা ফ্লেক্স ব্যানার নিচ্ছেননা ফলে টাকাও পাচ্ছেন না ব্যাবসায়ীরা।




টাকার সমস্যায় পড়েছেন ব্যাবসায়ীরা। কর্মচারীদের বেতনও দিতে পারছেননা তারা। এখন এই ফ্লেক্স ব্যবসায়ীরাও তাকিয়ে আছেন উচ্চ আদালতের রায়ের উপরে। ব্যবসায়ীদের পাশাপাশি আদালতের স্থগিতাদেশের জেরে সমস্যায় পড়েছেন প্রার্থীরাও।





error: Content is protected !!