জয়ী হওয়ার পরেই নির্দল প্রার্থীর তৃণমূলে যোগদান ইসলামপুরে




ইসলামপুর, ১৮ মে: ত্রিস্তর পঞ্চায়েত নির্বাচনের ভোট গণনার কয়েক ঘণ্টা না কাটতে না কাটতেই জয়ী গ্রাম পঞ্চায়েতের নির্দল প্রার্থী তৃণমূল কংগ্রেসে যোগদান করলেন। উত্তর দিনাজপুর জেলার ইসলামপুর রামগঞ্জ -১ গ্রাম পঞ্চায়েতের নির্দল প্রার্থী সবনম আলো বেগম জয়ী হওয়ার কিছুক্ষণের মধ্যেই তৃণমূলে যোগদানে গ্রাম পঞ্চায়েতটি তৃণমূলের দখলে যায়।




উল্লেখ্য, পঞ্চায়েত নির্বাচনে দলের হয়ে টিকিট না পেয়ে তৃণমূল থেকে অভিমানে ক্ষোভে বেরিয়ে গিয়ে নির্দলের প্রতিক নিয়ে রামগঞ্জ-১ গ্রাম পঞ্চায়েতের হয়ে নির্বাচনে দাঁড়িয়েছিলেন সবনম আলো বেগম। তিনি তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী তৃণমূল প্রার্থীকে ১টি ভোটে পরাজিত করেন।

রামগঞ্জ-১ গ্রাম পঞ্চায়েতে ১৮ নম্বর আসনে ৮টি তৃণমূল কংগ্রেস ও ৮টি নির্দল প্রার্থী জয়ী হয়। ফলে অমিমাংসিত থেকে যায় গ্রাম পঞ্চায়েতে ফলাফল। রাতে সিদ্ধান্ত নেন তৃণমূল কংগ্রেসে পূনরায় যোগদান নেওয়ার। রাতেই ইসলামপুরের বিধায়ক তথা পৌরপ্রধান কানাই লাল আগরওয়ালের সঙ্গে দেখা করেন সবনম আলো বেগম। শুক্রবার দুপুরে ইসললামপুরের পাওয়ার হাউস এলাকায় তৃণমূল কার্যালয়ে তৃণমূল যুব সভাপতি কৌশিক গুনের হাত থেকে দলীয় পতাকা হাতে নিয়ে পুনরায় নিজের ঘর তৃণমূল কংগ্রেসে ফিরে আসেন। এই পালাবদলের ফলে গ্রামপঞ্চায়েতটি তৃণমূল কংগ্রেসের দখলে যায়।

সবনম আলো বেগম জানান, নির্বাচনের সময় তৃণমূল কংগ্রেসের টিকিট না পায়ে তিনি নির্দল প্রার্থী হিসাবে নির্বাচন লড়েন। এবং ১ ভোটে তৃণমূল প্রার্থীকে পরাজিত করে জয়ী হন। জয়ী হবার পড়েই তিনি স্থানীয় বিধায়ক তথা পৌর প্রধান কানাই লাল আগরওয়ালের সঙ্গে দেখা করেন। এবং পুনরায় নিজের ঘরে ফিরে আসার কথা জানান।

অপরদিকে যুব সভাপতি কৌশিক গুন জানান, “তৃণমূলের টিকিট পেয়ে সবনম আলো বেগম নির্দল প্রার্থী হয়ে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। সেখানে সবনম ১ ভোটে জয়ী হয়। সে টিকিট না পেয়ে ক্ষিপ্ত হয়ে নির্দল হয়ে লড়েন। আজ তিনি পুনরায় নিজের ঘরে ফিরে এলেন।”


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *