উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার আংশিক মেধাতালিকা




ডিডি নিউজ ডেস্ক, ৮ জুন: প্রকাশিত হল উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার ফলাফল। মেধা তালিকার কিছু স্থানাধিকারী ছাত্রছাত্রীদের নাম ও তথ্য-




চতুর্থ: সিঙ্গুর মহামায়া স্কুলের ছাত্র দিব্যদূত শাসমল উচ্চমাধ্যমিকে চতুর্থ হয়েছে। তার প্রাপ্ত নম্বর ৯৭.৪%।

পঞ্চম: চুঁচুড়ার রামকৃষ্ণ লেনের দেবদত্তা পাল ৪৮৫ নম্বর পেয়ে এবারের উচ্চমাধ্যমিকে সমগ্র রাজ্যে ৫ম স্থান অধিকার করেছে। মাধ্যমিক পরীক্ষায় দেবদত্তা মেয়েদের মধ্যে প্রথম এবং রাজ্যে ২য় স্থান অধিকার করেছিল। চুঁচুড়া বিনোদিনী গার্লস হাই স্কুলের ছাত্রী। বাবা সায়ন্তন পাল রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কের কর্মী। মা মালবিকা পাল চুঁচুড়া হাসপাতালের নার্স। দাদা দেবজ্যোতি পাল কলকাতা আর জে কর হাসপাতালের চিকিৎসক। দেবদত্তা দাদার পথ অনুসরন করে চিকিৎসক হতে চায়।

ষষ্ঠ: ৪৮৫ নম্বর পেয়ে মধুরিমা মুখার্জী ষষ্ঠ হয়েছে। সে উত্তরপাড়া টাউন স্কুলের ছাত্র।

সপ্তম: উচ্চমাধ্যমিকে রাজ্যে সপ্তম স্থান অধিকার করল শিলিগুড়ি গার্লস হাইস্কুলের ছাত্রী ঋতিকা কাঞ্জিলাল। শিলিগুড়ির হায়দারপাড়ার বাসিন্দা ঋতিকা কাঞ্জিলাল। মাধ্যমিকেও ভালো ফল করেছিল ঋতিকা। তবে সেসময় মেধা তালিকায় স্থান না হলেও উচ্চমাধ্যমিকে রাজ্যে সপ্তম স্থান অধিকার করে নিয়েছে সে। বিজ্ঞান বিভাগের ছাত্রী ঋতিকা। তার এই সাফল্যে খুশি স্কুলের শিক্ষক-শিক্ষিকারাও। ঋতিকা জানান, আগামীতে গবেষণা করতে চায় সে এবং পরিবারের পাশাপাশি শিক্ষক শিক্ষিকা সকলকে ধন্যবাদ জানিয়েছে ঋতিকা।

অষ্টম: ধনেখালীর ইচ্ছাপুর হাই স্কুলের ছাত্র রাজশেখর চট্টোপাধ্যায় অষ্টম স্থান অধিকার করেছে। তার প্রাপ্ত নম্বর ৪৮৩ । বাবা সলিল চট্টোপাধ্যায় পেশায় একজন সাইকেল মিস্ত্রি।

নবম: উচ্চমাধ্যমিকে নবম হয়েছে সৌভিক চন্দ্র। আরামবাগ হাই স্কুলের ছাত্র। যুগ্মভাবে নবম হয়েছে জাহ্নবী পাল। কোচবিহার মনীন্দ্র নাথ হাইস্কুলের ছাত্রী। অন্যদিকে বেহালার শীল পাড়ার বাসিন্দা ৪৮২ নম্বর পেয়ে নবম স্থান অধিকার করেছে। বেহালার বিদ্যা ভারতী গার্লস হাই স্কুলের ছাত্রী।

দশম : রায়গঞ্জ করোনেশন হাই স্কুলের ছাত্র রুপম পাল ৪৮১ নম্বর পেয়ে দশম স্থান অধিকার করেছে।





Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!