বালুরঘাটে মুখ্যমন্ত্রীকে তীব্র ভাষায় আক্রমণ কৈলাশ বিজয়বর্গী’র




বালুরঘাট, ৯ মে: মমতা ব্যানার্জী যদি রাজনীতিতে না আসতেন তাহলে তিনি অমিতাভ বচ্চনের থেকেও বড় অভিনেতা হতেন। কারণ যেমন নাটক করেন তা অমিতাভ বচ্চনকেও হার মানিয়ে দেবেন। বুধবার বালুরঘাটের কামারপাড়া হাটখোলা এলাকায় নির্বাচনী প্রচারে এসে মমতা ব্যানার্জীকে এমন ভাবেই আক্রমণ করেন বিজেপির কেন্দ্রীয় সম্পাদক তথা রাজ্য বিজেপির পর্যবেক্ষক কৈলাশ বিজয়বর্গী।




এছাড়াও বিভিন্ন ইস্যুতে মমতা ব্যানার্জী ও তার ভাইপো’কে তীব্র ভাষায় আক্রমণ করেন। তিনি বলেন, মুখ্যমন্ত্রী নিজেকে সৎ দেখানোর জন্য ২০০ টাকার শাড়ি ও ১০০ টাকার হাওয়াই চটি পরেন। পুরোনো ঘরে থাকেন। অথচ তার ভাইপো অভিষেক ব্যানার্জী ২৫ হাজার টাকার কলম ব্যবহার করেন। ৫০ হাজার টাকার জুতো পরেন। ৩ লক্ষ টাকার চশমার ফ্রেম পরেন। ১০০ কোটির বাংলোতে থাকেন।” অভিষেক ব্যানার্জীর বহু বেনামি সম্পত্তির তথ্য পেয়েছেন তিনি। সব কিছুর হিসাব তার কাছে আছে। ভোটের পর সব সিবিআইকে দেবেন। গ্রেপ্তার হবেন সবাই এক এক করে। ছাড় পাবেন না কেউ।

পুলিশ কর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন, ভারতী ঘোষের কথা আপনাদের মনে আছে তো? উনিও তৃণমূলের জেলা সভাপতি হিসেবে কাজ করতেন। মমতাকে মা বলে ডাকতেন। আজ বাংলার পুলিশ তাকে ধরার জন্য তল্লাশি চালাছে। উনি বাংলা ছেড়ে পালিয়েছেন। উনি যেখানেই থাকুন আমার সহমর্মিতা রইল ওনার জন্য। এমন হচ্ছেন মমতা ব্যানার্জী। যার সাহায্যে তিনি উপরে ওঠে, তাদের পেছনে ছুরি মারেন তিনি। সেই ছুরির আঘাত থেকে বাদ যাননি মুকুল রায়ও। তিনি একসময় সেকেন্ড কমান্ড ছিলেন। গোটা রাজ্যে তিনি সংগঠনের শ্রীবৃদ্ধি করেছেন। তার পেছনেও ছুরি মেরেছেন তিনি। তাই এবার পঞ্চায়েত নির্বাচনে বিজেপিকে জয়যুক্ত করার আহ্বান জানান তিনি।

এদিনের বক্তব্যে তিনি আরও বলেন, দিদির কারও নয়। যেই তাকে সাহায্য করে তার পেছনেই ছুরি মারেন তিনি। তিনি যে আজ মুখ্যমন্ত্রী হয়েছে সেটাও বিজেপি ও অটলবিহারি বাজপেয়ীর আমলে। সেই দিদি মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার পর বিজেপিকেই প্রথমে পেছন থেকে ছুরি মারেন। এবার যেই সব দিদির মন্ত্রী ভাইরা ‘দিদি দিদি’ করছেন তাদের জেলে যাওয়ার সময় হয়ে গেছে। সবাই তৈরি থাকুন। সকলেই চিট ফাণ্ডের টাকা মেরেছেন। একে একে সবাই জেলে যাবেন। মহিষের মত দেখতে মন্ত্রী পার্থ চ্যাটার্জী চিটফান্ডের সমর্থনে বক্তব্য রাখছেন। সেই ভিডিও আছে আমার কাছে। ভোটের পর সেই ভিডিও সিবিআইকে দেব। তার পরই গ্রেপ্তার হবেন তিনিও।

এদিনের নির্বাচনী সভায় কৈলাশ বিজয়বর্গী ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন জেলা বিজেপির পর্যবেক্ষক সঞ্জীব মিশ্র, বিজেপির জেলা সভাপতি শুভেন্দু সরকার সহ অন্যান্য জেলা নেতৃত্ব।





You May Also Like

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!