দোকানের ভাড়া সমস্যায় বন্ধের মুখে গঙ্গারামপুরের ঐতিহ্যবাহী বারুণী মেলা





 

গঙ্গারামপুর, ১৩ মার্চ: ভাড়ার টাকা নিয়ে মেলায় দোকান বসানোকে কেন্দ্র করে মালিক পক্ষ ও দোকানদারদের মধ্যে বচসা। ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়াল গঙ্গারামপুর থানার শিববাড়ি এলাকায় বারুণী মেলা প্রাঙ্গণে। সমস্যা না মেটায় ঐতিহ্যবাহী বারুণী মেলায় দোকান না দিয়েই ফিরে যাচ্ছে বেশির ভাগ দোকানদার। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে আসে গঙ্গারামপুর থানার বিশাল পুলিশ বাহিনী। দুই পক্ষের সঙ্গে আলোচনা করছে পুলিশ।







জানা গিয়েছে, সামনেই বারুণী মেলা। দক্ষিণ দিনাজপুরের ঐতিহ্যবাহী বারুণী মেলার মধ্য অন্যতম গঙ্গারামপুর থানার শিববাড়ি এলাকার বারুণী মেলা। শিব বাড়ি হাটেই বসে মেলাটি। জাঁকজমকপূর্ণ এই মেলায় বহুদূর দূরান্ত থেকে আসে দোকনদাররা। এবারও মেলা উপলক্ষে অনেক আগে ভাগেই দোকানদাররা নিজেদের পসরা নিয়ে হাজির হয়।কিছু দোকনদাররা দোকান সাজাতেও শুরু করে। ইতিমধ্যে ঘটনাস্থলে আসে জায়গার মালিক। তাকে না জানিয়ে বা অনুমতি ছাড়া দোকান তৈরি করায় সবার কাছ থেকে ৩ হাজার টাকা চায় জরিমানা স্বরূপ। তা দিতে অস্বীকার করে দোকানদাররা। এই নিয়েই মালিক ও দোকানদারদের মধ্যে বচসার শুরু হয়।




ঘটনায় ব্যাপক উত্তেজনা ছড়ায় এলাকায়। এদিকে বচসার জেরে মেলায় আসা অনেক দোকানদাররা মেলা থেকে চলে যাওয়ায় এক রকম বন্ধের মুখে ঐতিহ্যবাহী শিববাড়ির বারুণী মেলা। এদিকে খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে আসে গঙ্গারামপুর থানার বিশাল পুলিশ বাহিনী। পুলিশি হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়। এলাকায় উত্তেজনা থাকায় পুলিশ এখনও রয়েছে।
এবিষয়ে ফিরে যাওয়া এক দোকানদার জানান, মেলায় দোকান দেওয়ার জন্য ৩ হাজার টাকা চায় মালিক। যা দেওয়া তাদের পক্ষ অসম্ভব। তাই তারা দোকান নিয়ে ফিরে যাচ্ছেন। মেলায় আর দোকান দেবেন না বলে সাফ জানিয়েছেন।




অন্য দিকে হাট মালিক অশোক নন্দী জানান, এবার অনেক নতুন দোকনদার আগেই চলে আসে মেলা উপলক্ষে। তারা মেলায় দোকান দেওয়ার কথা জানান। পুরোনো দোকানদাররা না আসা পর্যন্ত নতুনদের জায়গা দিতে পারবেন না বলে অশোকবাবু জানান। যদিও এদিন দেখেন মেলায় দোকানে ভরে গেছে। তবে পুরোটা ভরার কথা ছিল না। অনেক পুরনো দোকানদাররা এখনও আসেননি। তাই যারা নতুন দোকান বসেছে তাদের গিয়ে বলেন বিনা অনুমতিতে দোকান দেওয়ায় ৩হাজার টাকা জরিমানা নেবেন। ভাড়া বাবদ ৩ হাজার টাকা নেওয়া হচ্ছে না বলে অশোকবাবু জানিয়েছেন। গঙ্গারামপুর থানার পুলিশ পুরো বিষয়টি খতিয়ে দেখার আশ্বাস দিয়েছেন এবং সমস্যা সমাধানে দুই পক্ষের সঙ্গে কথা বলছেন তারা।





You May Also Like

error: Content is protected !!