ব্যাঙ্কের গ্রাহক পরিষেবা কেন্দ্রের বিরুদ্ধে আর্থিক প্রতারণার অভিযোগ




কুমারগঞ্জ, ২ এপ্রিল: ষ্টেট ব্যাঙ্কের একটি গ্রাহক পরিষেবা কেন্দ্রের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠল আর্থিক প্রতারণার। জমা টাকা ফেরতের দাবিতে ব্যাঙ্ক কর্তৃপক্ষকে ঘিরে বিক্ষোভ গ্রামবাসীদের। ঘটনায় কুমারগঞ্জ থানার পাইকপাড়া এলাকায় উত্তেজনা ছড়িয়েছে। বিষয়টি খতিয়ে দেখে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস ব্যাঙ্কের।




জানা গিয়েছে, গ্রামীণ ও প্রত্যন্ত এলাকা গ্রাহকদের পরিষেবায় রয়েছে ষ্টেট ব্যাঙ্কের বহু গ্রাহক পরিষেবা কেন্দ্র। এজেন্সির দ্বারা চালু ওই পরিষেবা কেন্দ্র থেকে ব্যাঙ্কের যাবতীয় কাজকর্ম করে থাকেন গ্রাহকরা।

কুমারগঞ্জের পাইকপাড়া এলাকায় একটি দোকান ভাড়া নিয়ে এইরকম পরিষেবা কেন্দ্র চালু করে একটি এজেন্সী। ষ্টেট ব্যাঙ্ক শাখার গ্রাহক পরিষেবা কেন্দ্র নামে চলা কেন্দ্র থেকে ব্যাঙ্কের যাবতীয় কাজ করার পাশাপাশি একাউন্টে টাকা জমার দিতে থাকেন আশেপাশের সমস্ত এলাকার গ্রাহকরা।

দিন কয়েক আগে ওই এলাকার কিছু গ্রাহক এসবিআই এর পতিরাম শাখায় গিয়ে জানতে পারেন, গ্রাহক পরিষেবা কেন্দ্রে জমা করা টাকাগুলি একাউন্টে ঢোকেইনি এতদিন। বিষয়টি জানাজানি হতেই এলাকার সমস্ত গ্রাহক তাদের একাউন্ট পরীক্ষা করতে যান পতিরাম শাখায়। কিন্তু সকলের একাউন্টে আর্থিক প্রতারণার বিষয়টি ফুটে ওঠে।

প্রতারণার খবর ফাঁস হতেই পাইকপাড়ার এজেন্সিটি বন্ধ করে গা ঢাকা দেয় প্রতারকরা। এরপরেই জমা টাকা ফেরত পেতে পতিরাম শাখার এসবিআই কর্তৃপক্ষের কাছে দাবি রাখেন গ্রাহকরা। শেষে ব্যাঙ্কের পক্ষ থেকে তিনজন প্রতিনিধি পাইকপাড়া গ্রামের ওই কেন্দ্রে যান। সেখানেই গ্রামবাসীদের রোষের মুখে পড়তে হয় কর্তৃপক্ষকে। ঘটনাস্থলে পৌঁছায় কুমারগঞ্জ থানার পুলিশ। টাকা ফেরতের আশ্বাসে স্বাভাবিক হয় পরিস্থিতি।

এবিষয়ে গ্রামবাসী কৌশিক সরকার জানান, পাইকপারা, খাঁপুর, সৈয়দপুর সহ বেশ কিছু গ্রামের গ্রাহকরা ওই পরিষেবা কেন্দ্রে তাদের টাকা জমা করেছিলেন। পরে দেখা যায়, অন্তত ৭০ থেকে ৭৫ জন গ্রাহকের টাকা জমা করা হয়নি তাদের একাউন্টে। কারও ৯০ হাজার কারও ১ লক্ষ টাকা চোট হয়েছে এইভাবে। তবে এই ব্যাপারে সংবাদ মাধ্যমে কিছু বলতে চায়নি ব্যাঙ্ক কর্তৃপক্ষ।





You May Also Like

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!