পুলিশকে চা-বিস্কুট খেয়ে আইপিএল দেখার পরামর্শ দিলীপের




মুর্শিদাবাদ, ৪ মে: মুর্শিদাবাদ ও বীরভূমে অধিকাংশ আসনে বিরোধীরা কোনও প্রার্থী দিতে পারেনি। এই হচ্ছে বর্তমান রাজ্য সরকারের উন্নয়নের নমুনা। আসলে রাস্তায় উন্নয়ন বোমা-পিস্তল নিয়ে দাঁড়িয়ে আছে। যে গণতন্ত্রে ৩৪ শতাংশ আসনে প্রার্থী থাকে না সেখানে গণতন্ত্র বলে কিছু আছে কি? শুক্রবার মুর্শিদাবাদের বেলডাঙায় নির্বাচনী প্রচারে গিয়ে রাজ্য সরকারকে এভাবেই বিঁধলেন রাজ্য বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষ।




তিনি কিছুটা রসিকতার সুরে বলেন, “আমি পুলিশ বন্ধুদের বলেছি আপনারা থানায় বসে চা বিস্কুট খান আর টিভিতে আইপিএল ম্যাচ দেখুন। ওয়ান ডে এবং টি ২০ ম্যাচ আমরা আমাদের মত করে জিতে নেব। “

এদিন তিনি প্রথমে বেলডাঙা থানার চৈতন্যপুর ও পরে মহুলা ঘোষপাড়ায় দলীয় প্রার্থীদের সমর্থনে নির্বাচনী প্রচার করেন। তিনি রাজ্য সরকারকে এক প্রকার চ্যালেঞ্জের সুরে বলেন এটাই শেষ নির্বাচন নয়।

মুখ্যমন্ত্রীর উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, “আপনি ভাববেন না বাংলার মানুষ বোকা। বাংলার মানুষ সব কিছুই দেখছেন, বুঝছেন। সুযোগ পেলে সময় মত জবাব দেবেন। নির্বাচন কমিশন আপনার হাতে। তাই আজ হয়ত পুলিশ দিয়ে ভোট করিয়ে নেবেন। কিন্তু ২০১৯ সালে পার্লামেন্টের অর্থাৎ লোকসভা নির্বাচনের সময় কেন্দ্রীয় বাহিনী আসবে, কেন্দ্রীয় নির্বাচন কমিশন থাকবে তখন মানুষ যোগ্য জবাব দেবেন। ”

এরপরেই তিনি আক্রমণাত্মক মেজাজে বলেন, “ফোর্স আনুন আর না আনুন, আমাদের সেন্ট্রাল ফোর্স বা পুলিশ লাগবে না। আপনারা ভোট করুন, যার যেখানে দম আছে করিয়ে নেবে। “

তিনি রাজ্য নির্বাচন কমিশনকে এক হাত নিয়ে বলেন, “রাজ্য নির্বাচন কমিশনের চোখ, কান, নাক নেই। তার কাছে কিছু বলতে যাওয়া মানে অরণ্যে রোদন। তাই আমরা কোর্টকে বোঝাতে পেরেছি সন্ত্রাসের মাধ্যমে ভয়ের পরিবেশ তৈরি করে নিরঙ্কুশভাবে ক্ষমতা দখলের চেষ্টা করছে। কোর্ট তাই বার বার বলছেন। আর নির্বাচন কমিশন তাকে সন্তুষ্ট করতে পারছেন না।”





You May Also Like

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!