কোনটা সার্কাসের দল সেটা মুকুলবাবু ভাল করেই জানেন: পাল্টা জবাব বিপ্লব মিত্রের







বালুরঘাট, ১৪ মার্চ: আসন্ন পঞ্চায়েত নির্বাচনকে সামনে রেখে বুধবার বালুরঘাট নাট্য মন্দিরে প্রধান অতিথি হিসাবে আসেন সদ্য বিজেপিতে যোগ দেওয়া নেতা মুকুল রায়। জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের গোষ্ঠী কোন্দলকেও তিনি এক হাতে নেন। কার্যত তৃণমূল কংগ্রেসকে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে বলেন ক্ষমতা থাকলে বিপ্লব মিত্র ও শুভাশিস পালকে এক সঙ্গে নিয়ে বৈঠক করুক দল। পারবে এক সঙ্গে নিয়ে বৈঠক করতে তৃণমূল। এই জেলায় বিপ্লব মিত্র এক দিকে চলে, শুভাশিস পাল এক দিকে চলে। তো আরেক দিকে চলে শঙ্কর চক্রবর্তী ও অর্পিতা ঘোষ।





 

অন্যদিকে তৃণমূল কংগ্রেসের জেলা সভাপতি বিপ্লব মিত্র জানান, কোনটা সার্কাসের দল সেটা মুকুলবাবু ভাল করেই জানেন। দক্ষিণ দিনাজপুরে তৃণমূল কংগ্রেস বরাবরই শক্তিশালী ছিল আর থাকবেও। তাই কে কি বলল তা নিয়ে কোন মাথা ব্যাথা নেই তাঁর। আর মুকুলবাবুই ভাল বলতে পারবেন তৃণমূল সার্কাসের দল না কি। কারণ একটা সময় এই দলের সেকেন্ড ইন কমান্ড ছিলেন তিনি।




প্রসঙ্গত, আসন্ন পঞ্চায়েত নির্বাচনকে সামনে রেখে বুধবার দুই দিনাজপুর ও মালদা জেলা বিজেপি নেতৃত্বদের নিয়ে কর্মশালা অনুষ্ঠিত হল বালুরঘাট নাট্য মন্দিরে। কর্মশালায় হাজির ছিলেন রাজ্য বিজেপি নেতৃত্ব মুকুল রায়, সাংগঠনিক সম্পাদক সুব্রত চ্যাট্টার্জী, সাধারণ সম্পাদক উত্তরবঙ্গ প্রতাপ ব্যানার্জী, তিন জেলার জেলা সভাপতি সহ অন্যান্য নেতৃত্ব। বৈঠক শেষে মুকুল রায় সাংবাদিক বৈঠক করেন। সেখানে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে মুকুলবাবু জানান, দক্ষিণ দিনাজপুর থেকে ৬ হাজার জন তৃণমূল থেকে বিজেপি যোগ দিতে চলেছেন। সেই লিস্ট তার কাছে এসে পৌঁছেছে। যে ভাবে বিজেপি বাংলায় শক্তি বৃদ্ধি করছে তাতে আগামী পঞ্চায়েত নির্বাচনে দুই দিনাজপুর ও মালদা জেলা পরিষদ বিজেপি দখল করবে। এবং গোটা রাজ্যে বিজেপি ভাল ফল করবে। বিপ্লব মিত্র , সোনা পাল ছারাও মুখ্যমন্ত্রীকে তীব্র কটাক্ষ করেন মুকুল রায়। পাশাপাশি বিপ্লব মিত্র ও তার মন্তব্যের বিরোধিতা করেছেন।





error: Content is protected !!