অভিনব এটিএম প্রতারণা, খোয়া গেল টাকা




কলকাতা,১১ জানুয়ারি:অভিনব এটিএম প্রতারণার ঘটনা ঘটলো জয়নগরের দক্ষিণ বারাসাত এলাকায়। এটিএমের পিন জেনারেট করতে গিয়ে প্রতারকের খপ্পরে পড়লেন এলাকার বাসিন্দা প্রণবেশ হালদার। খোয়ালেন পুরো মাসের বেতন। দক্ষিন বারাসাতের দাস পাড়ার বাসিন্দা প্রণবেশ গত মাসে একটি বেসকরকারি সংস্থায় কাজে ঢোকেন। সংস্থা থেকে তাঁকে নতুন ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট খুলে দেওয়া হয়। সেই অ্যাকাউন্টেই তাঁর বেতন ঢোকার কথা। দেওয়া হয় নতুন এটিএম কার্ডও।




বুধবার সেই অ্যাকাউন্টে তাঁর ডিসেম্বরের বেতন ঢোকে। সন্ধ্যায় স্থানীয় একটি এসবিআই এটিএমে যান টাকা তুলতে। কিন্তু নতুন এটিএম কার্ড হওয়ায় তাঁকে পিন জেনারেট করতে বলে। এসব ব্যাপারে অতটা সরগড় না হওয়ায় প্রণবেশ এটিএমে থাকা সিকিউরিটির খোঁজ করেন। কিন্তু সেই সময় বোর্ড ঝুলিয়ে টিফিন করতে গিয়েছিল সিকিউরিটি গার্ড। ফলে প্রণবেশ অপেক্ষা করতে থাকেন। প্রণবেশের কথা অনুযায়ী, এই সময় একজন এসে নিজেকে সিকিউরিটি গার্ড পরিচয় দিয়ে কি সমস্যা জানতে চান।

পিন জেনারেট করতে হবে শুনে তিনি নিজে সাহায্য করতে এগিয়ে আসেন। প্রণবেশের থেকে কার্ডটি নিয়ে মেশিনে কিছু করে আবার তাঁকে কার্ডটি ফেরত দিয়ে দেন। বলেন, পিন জেনারেট হয়ে গিয়েছে। একটু অপেক্ষা করতে হবে। একটা এসএমএস আসবে। এলেই কার্ড থেকে টাকা তুলতে পারবেন। অতঃপর প্রণবেশ এটিএমের বাইরে বসে এসএমএসের অপেক্ষা করতে থাকেন। কিছুক্ষণের মধ্যে তাঁর অ্যাকাউন্টের পুরো টাকা তোলা হয়ে গিয়েছে বলে এসএমএস আসে প্রণবেশের কাছে। মেসেজ পেয়ে আকাশ থেকে পড়েন তিনি।

প্রণবেশের অভিযোগ, তৎক্ষনাৎ এটিএমে গিয়ে তিনি দেখেন, সিকিউরিটি এসে গিয়েছে। কিন্তু তিনি আগের লোক নন। তাঁর সঙ্গে যে বড়সড় প্রতারণা হয়েছে তা বুঝতে পারেন প্রণবেশ। তার অভিযোগ, পিন জেনারেটের নাম করে তাঁর থেকে কার্ড নেওয়ার সময়েই তা বদলে দেন ওই ব্যক্তি। তারপর আসল কার্ডটি নিয়ে অন্য কোনও এটিএম থেকে টাকা তুলে নেন। জয়নগর থানায় এ বিষয়ে একটি অভিযোগও দায়ের করেছেন তিনি।

এর পেছনে একটি চক্র কাজ করছে বলেই অভিযোগ প্রণবেশের। তিনি বলেন, যেভাবে ওরা অন্য কার্ড সঙ্গে রেখেছিলো, এবং হাত সাফাই করে তা বদলে দিলো, তাতে রীতিমতো পরিকল্পনা করেই নেমেছে বলে মনে হয়। স্থানীয় ব্যাঙ্কের এক আধিকারিক বলেন, আমরা বারবার গ্রাহকদের এটিএম ব্যবহারে সতর্ক থাকতে বলি। এক্ষেত্রে অচেনা লোককে পিন জেনারেট করতে দেওয়াটা ওই ব্যক্তির উচিৎ হয়নি। ওই এটিএমের সিসিটিভি ফুটেজের মাধ্যমে ওই ব্যক্তির খোঁজ করার চেষ্টা করছে পুলিশ।




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!