মারা গেলেন স্বাধীনতা সংগ্রামী পদ্মশ্রী সুধাংশু বিশ্বাস




দক্ষিণ ২৪ পরগনা,০৭ ডিসেম্বর:মারা গেলেন স্বাধীনতা সংগ্রামী পদ্মশ্রী সুধাংশু বিশ্বাস। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল প্রায় 100। তিনি একদিকে যেমন দেশের স্বার্থে ইংরেজদের বিরুদ্ধে লড়াই করেছেন ঠিক তার অপর দিকে স্বাধীনতার পর সুন্দরবনের অনাথ শিশু ও বৃদ্ধাশ্রম খুলে সাধারণ মানুষের সেবায় নিজেকে নিয়োগ করেছে। দেশ স্বাধীনের পর ১৯৭৩ সালে দক্ষিণ 24 পরগনার বিষ্ণুপুরের দুর্গাপুরে শ্রী রামকৃষ্ণ সেবাশ্রম প্রতিষ্ঠা করেন।




সেখানেই অল্প কয়েকজন শিশু নিয়ে অনাথ আশ্রম শুরু করেন। তারপর থেকে ধীরে ধীরে সুধাংশু বাবুর অনাথ আশ্রমের সদস্য বাড়তে থাকে পরে বৃদ্ধাশ্রম খোলেন। তিনি দেশের স্বার্থে লড়াই করা ও তার এই কাজের জন্য ভারত সরকার তাকে পদ্মশ্রী সম্মান দেন। চলতি বছরের জানুয়ারিতেই ভারত সরকার ঘোষণা করেন সুধাংশু বাবুকে পদ্মশ্রী সম্মানে ভূষিত করা হবে।

তারপর এপ্রিল মাসের শুরুতেই তার হাতে রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন পদ্মশ্রী সম্মান তুলে দেন। সুধাংশু বাবু স্বাধীনতা সংগ্রামী বেণীমাধব দাসের শিষ্য ছিলেন। তার হাত ধরেই বারীন ঘোষ বীণা দাস শিশির বসু অমিয় মন্ডল সহ একাধিক স্বাধীনতা সংগ্রামীদের সঙ্গে ইংরেজদের বিরুদ্ধে লড়াই করেছেন। তিনি নিজের মুখেই এক সময় স্বীকার করেছিলেন ভারত স্বাধীন করতে সে সময় তিনি বোম বন্দুক নিয়েও স্বাধীনতা সংগ্রামীদের সাহায্য করেছিলেন। গত বুধবার সাড়ে এগারোটা নাগাদ হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়েন। সঙ্গে সঙ্গে তাকে বেহালা ঠাকুর পুকুরের একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

সেখানেই চিকিৎসা চলছিল সুধাংশু বাবুর। আজ বেলা একটা নাগাদ মৃত্যু হয় তার। মৃত্যুর খবর এলাকায় আসতেই নেমে এসেছে শোকের ছায়া। রাতে মৃতদেহ দুর্গাপুর এলাকায় আসলে সেখানে রামকৃষ্ণপুর, মনিরামপুর, হটোর সহ একাধিক এলাকার মানুষ শীতের রাতে তাকে দেখতে আসেন। আগামীকাল শুক্রবার বেলা দশটা নাগাদ বারুইপুর কীর্তনখোলা মহাশ্মশানে তার শেষকৃত্য সম্পন্ন হবে। এর আগে শুক্রবার সকাল থেকে মৃতদেহ নিয়ে এলাকার বিভিন্ন জায়গায় পদযাত্রার আয়োজন করেছে শ্রী রামকৃষ্ণ সেবাশ্রমের সদস্যরা।

 




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!