শৌচালয় নেই, অতিরিক্ত জেলাশাসককে ঘিরে গ্রামবাসীদের বিক্ষোভ







বংশীহারী, ১১ মার্চ: রবিবার নির্মল ব্লকের তকমা পেল বংশীহারী ব্লক। এদিকে এই ব্লকের অন্তর্গত মহাবারি গ্রামপঞ্চায়েতের দুটি গ্রাম খিদিরপুর ও রহিমপুরে এখনও বেশিরভাগ বাড়িতে নেই শৌচালয়। এছাড়াও ব্লকে এখনও অনেক বাড়িতে শৌচালয় নেই। ফলে শৌচকর্ম করতে মাঠঘাটই একমাত্র ভরসা। এরই মধ্যে এদিন বংশীহারীকে নির্মল ব্লক ঘোষণা করা হয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে। বংশীহারী ব্লক অফিস প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত হওয়া অনুষ্ঠানে যায় রহিমপুর ও খিদিরপুর এলাকার বাসিন্দারা। অতিরিক্ত জেলাশাসক(উন্নয়ণ) মৃণ্ময় বিশ্বাসকে ঘেরাও করে বিক্ষোভ দেখায় গ্রামবাসীরা। বিষয়টি খতিয়ে দেখার আশ্বাস দিয়েছেন মৃণ্ময়বাবু।




 

জানা গিয়েছে, মহাবারি গ্রামপঞ্চায়েতের রহিমপুর, খিদিরপুর এলাকায় একহাজার পরিবার রয়েছে। যার মধ্যে বেশিরভাগ পরিবারের বাড়িতে নেই কোনও শৌচালয়। ২০১৬সালে সরকারি সহায়তায় শৌচালয় পেতে টাকা দেয় গ্রামবাসীরা। ৯০০টাকা করে গ্রামবাসীরা পঞ্চায়েত সদস্যদের দেয়। এদিকে ২০১৬সালে ২২ডিসেম্বর মহাবারি গ্রামপঞ্চায়েতকে নির্মল পঞ্চায়েত ঘোষণা করা হয়। এদিকে গত কয়েকদিন থেকেই জেলার এক-একটি করে ব্লককে নির্মল ব্লক ঘোষণা করা হচ্ছে। এদিন বংশীহারী ব্লককেও নির্মল ঘোষণা করা হয়। এদিকে এলাকায় দুটি গ্রামে এখনও শতাধিক বাড়িতে নেই কোনও শৌচালয়। এরপরেও কি করে নির্মল ব্লক ঘোষণা করা হয় সেই নিয়ে প্রশ্ন তোলেন এলাকাবাসীরা। এদিনের অনুষ্ঠানে গ্রামবাসীরা ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত জেলাশাসককে সামনে পেয়ে বিক্ষোভ দেখান। শৌচালয়ের দাবি জানান গ্রামবাসীরা। পুরো বিষয়টি খতিয়ে দেখার আশ্বাস দেন অতিরিক্ত জেলাশাসক(উন্নয়ণ) মৃণ্ময় বিশ্বাস।




এই বিষয়ে স্থানীয় গ্রামবাসী কল্পনা সরকার ও সিতেশ সরকার জানান, তাদের গ্রামের বেশিরভাগ বাড়িতেই নেই শৌচালয়। তাই শৌচকর্ম করতে একমাত্র ভরসা মাঠঘাট। এদিকে শৌচালয় তৈরির জন্য তারা টাকা দিয়েছেন এবং ২০১৬ সালে নির্মল পঞ্চায়েত ঘোষণা করার জন্য পঞ্চায়েত সদস্যরা কার্ড দেয়। কিন্তু এখনও পর্যন্ত তারা শৌচালয় পাননি। মাঠেঘাটে শৌচকর্ম করতে গিয়ে নানান সময় অপরিস্থিতিকর অবস্থায় পড়তে হয় মহিলাদের। তাই তারা এদিন অতিরিক্ত জেলাশাসককে পুরো বিষয়টি জানান এবং বাড়িতে শৌচালয়ের দাবি করেন।

অতিরিক্ত জেলাশাসক(উন্নয়ণ) মৃণ্ময় বিশ্বাস গ্রামবাসীদেরকে পুরো বিষয়টি খতিয়ে দেখার আশ্বাস দিয়েছেন। পাশাপাশি প্রত্যেককে শৌচালয় ব্যবহার করার জন্য তিনি আবেদন জানিয়েছেন।








error: Content is protected !!