পণের বলি গৃহবধু, গ্রেপ্তার স্বামী-শ্বশুর




শিলিগুড়ি, ২ জুন : পণের দায়ে বলি হলেন এক গৃহবধূ। খুন করে গৃহবধূকে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে শ্বশুরবাড়ির বিরুদ্ধে। ঘটনায় স্বামী ও শ্বশুরকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।




পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, মৃত ওই গৃহবধূর নাম তুলসি অধিকারী (৩২)। তার ঘটনাটিকে কেন্দ্র করে শনিবার সকালে ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়ায় এলাকায়। ঘটনায় অভিযোগের ভিত্তিতে মৃতার স্বামী অমিত চক্রবর্তী ও শ্বশুর দীপক চক্রবর্তীকে গ্রেপ্তার করেছে প্রধাননগর থানার পুলিশ। গৃহবধূর মৃতদেহ ময়নাতদন্তের জন্য উত্তরবঙ্গ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ডেপুটি ম্যাজিস্ট্রেটের উপস্থিতিতে ময়নাতদন্ত করা হবে।অভিযোগের ভিত্তিতে পুরো ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

২০১৬ সালে আলিপুরদুয়ারের শামুকতলার বাসিন্দা মিলন অধিকারীর মেয়ে তুলসি অধিকারীর সঙ্গে শিলিগুড়ির সমরনগরের বট তলার বাসিন্দা দীপক চক্রবর্তীর ছেলে অমিত চক্রবর্তীর বিয়ে হয়। পেশায় অমিত চক্রবর্তী একজন মুদিখানা দোকানের ব্যবসায়ী। বিয়ের পর থেকেই পনের জন্য ঝামেলা লেগেই থাকত। বেশ কয়েকবার পণের দাবিতে মারধরও করা হয়েছে বলে অভিযোগ। এরপর আচমকা ৩১ তারিখ বৃহস্পতিবার রাতে খবর আসে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে গৃহবধু। এরপরই সন্দেহ হয় মৃতার পরিবারের।

গৃহবধূর বাবা মিলন অধিকারী বলেন,শিলিগুড়ি এসে মেয়ের মৃতদেহ দেখে আমার সন্দেহ হয় খুন করে ঝুলিয়ে দেওয়া হয়েছে।এরপরই আমরা থানায় শ্বশুরবাড়ির বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দায়ের করি। টাকার জন্যই খুন করা হয়েছে আমার মেয়েকে।

পুলিশ কমিশনারেটের ডিসিপি জোন ২ তরুণ হালদার বলেন, অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত শুরু হয়েছে। আমরা পুরো বিষয়টি খতিয়ে দেখছি।




You May Also Like

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!