সালিশি সভায় ১ যুবকে দোষী ঘোষনা করে জীবন্ত পুড়িয়ে মারার নির্দেশ দিল মোড়ল মাত্ববরেরা




মালদা,০৪ অক্টোবর:-জমি বিবাদ নিয়ে সালিশি সভায় এক যুবকে দোষী ঘোষনা করে জীবন্ত পুড়িয়ে মারার নির্দেশ দিল মোড়ল মাত্ববরেরা। মোড়লের কথায় ওই যুবকের গায়ে কেরসিন ডেলে পুড়িয়ে মারার চেষ্টা করল কয়েকজন। পরিবারের লোকেদের তৎপরতায় ওই যুবকে আগ্নিদগ্ধ অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়। বুধবার গভীর রাতে মালদহ জেলার হব্বিপুর থানার কেন্দুপুকুর গ্রামে ঘটনাটি ঘটেছে। ঘটনায় এক মহিলা সহ তিন জনকে গ্রেফতার করেছে হব্বিপুর থানার পুলিশ। ঘটনায় তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়েছে গোটা এলাকা জুড়ে।




স্থানীয় ও পুলিশ সুত্রে জানা গিয়েছে জখম যুবকের নাম মন্ডল হাঁসদা। বাড়ী হব্বিপুর থানার কেন্দপুকুর গ্রামে। পরিবার সুত্রে জানা গিয়েছে মন্ডল হাঁসদার সঙ্গে তার পিসি শ্রীমতি হাঁসদার একটি জমি নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিবাদ চলছিল। অভিযোগ মন্ডল হাঁসদার জমি তার পিসি শ্রীমতি জবরদখল করে রাখে। এই নিয়েই দুই পক্ষের বিবাদ শুরু হয়।

তাদের দুই পরিবারের সমস্যা সমাধানে বুধবার রাতে একটি গ্রাম্য সালিশির আয়োজন করা হয়। সেই সালিশিতে দুই পক্ষের মানুষ সহ উপস্থিত ছিল গ্রামের মোড়ল। অভিযোগ সালিশি সভায় মন্ডল হাঁসদাকে দোষী করে মোড়ল মাত্ববরা। তার শাস্তি হিসাবে গ্রামের মোড়ল তাকে জীবন্ত পুড়িয়ে মারার সিধান্ত নেয় বলে অভিযোগ। সেই মত মোড়লের কয়েকজন সাগের মন্ডলের হাত পা বেধে গায়ে কেরসিন দিয়ে পুড়িয়ে মারার চেষ্টা করে।

পরিবারের লোকেরা ছুটে এসে আগ্নিদগ্ধ আবস্থায় তাকে উদ্ধার করে মালদহ মেডিকেলে নিয়ে আসে। বর্তমানে সেখানে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছ। ঘটনায় এদিন রাতেই হব্বিপুর থানায় অভিযোগ দায়ের করে পরিবারের লোকেরা। ঘটনার তদন্তে নেমে অভিযুক্ত পিসি সহ তিন জনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। পুলিশ সুত্রে জানা গিয়েছে ধৃতরা হল শ্রীমতি হাঁসদা, কবিরাজ মুর্মু সহ আরো এক জন। বৃহস্পতিবার ধৃত তিন জনকে মালদহ আদালতে পেশ করে ঘটনার তদন্তে নামে পুলিশ।




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!