কলেজে ভরতির নামে টাকা নিয়েছিল বিশ্বজিৎ, থানায় অভিযোগ ছাত্রীর




হুগলি, ১০জুলাই: কলেজে ভরতির নামে দুই ছাত্রীর থেকে টাকা নিয়েছিল বিশ্বজিৎ দাস নামে এক যুবক। নিজেকে তৃণমূল ছাত্র পরিষদের সদস্য বলেও পরিচয় দিয়েছিল। উত্তরপাড়া থানায় এই অভিযোগ জানালেন হুগলি জেলা তৃণমূল ছাত্র পরিষদের সাধারণ সম্পাদিকা প্রিয়াঙ্কা অধিকারী ও উত্তরপাড়া স্বামী নিঃসম্বলানন্দ গার্লস কলেজের ছাত্রীরা। সামনে এসেছে ফোনে কথোপকথনের কয়েকটি রেকর্ডিং। যেখানে শোনা যায়, শ্রীরামপুর কলেজের সেকেন্ড ইয়ারের ছাত্র বিশ্বজিৎ দাস স্বামী নিঃসম্বলানন্দ গার্লস কলেজে ভরতির নামে দুই ছাত্রীর কাছ থেকে টাকা চাইছে।




প্রথমে রেকর্ডিংটি কলেজের জেনারেল সেক্রেটারি রীমাশ্রী দত্তকে শোনায় বাণী পাল ও সর্বাণী পাল নামে ওই দুই ছাত্রী। পরে তা জানানো হয় তৃণমূল ছাত্র পরিষদের জেলা নেতৃত্বকে। অভিযোগ, বিশ্বজিৎ দাস নামে ওই ছাত্র ভরতি করে দেওয়ার নামে বেশ কয়েকজন ছাত্রীর কাছ থেকে টাকা চেয়েছিল। এই সংক্রান্ত কয়েকটি ফোনের রেকর্ডিং প্রকাশ্যে এসেছে। যেখানে শোনা যাচ্ছে, বিশ্বজিতের সঙ্গে রফা করছেন এক ছাত্রীর বাবা। রেকর্ডিং থেকে বোঝা যায়, কথা ছিল ভরতির পর বিশ্বজিৎ কে দিতে হবে ১৩ হাজার টাকা। এই টাকা অনেক ধাপে যাবে বলে বিশ্বজিৎ কে বলতে শোনা যায়। অর্থাৎ অনেককে এই টাকার ভাগ দিতে হবে।

পাশাপাশি অপর এক ছাত্রীর সঙ্গে রেকর্ডিংয়ে শোনা যায়, সেই ছাত্রীকে কলেজে ভরতি করে দিতে পারেনি বিশ্বজিৎ। কিন্তু টাকা নিয়ে নিয়েছে। সেই টাকা ফেরত চাইলে বিশ্বজিৎ ওই ছাত্রীকে বলে অন্য কলেজে তাকে ভরতি করিয়ে দেওয়া হবে। তবে কথোপকথনে শোনা যায়, কলেজে ছাত্রীদের ভরতি করতে অনেক ডিপার্টমেন্টের প্রধানকেও টাকা দিয়েছে সে। যদিও এই ফোন রেকর্ডিংয়ের সত্যতা যাচাই করা সম্ভব হয়নি। এই রেকর্ডিংগুলো সামনে আসার পরই নড়েচড়ে বসে হুগলি জেলা তৃণমূল নেতৃত্ব।

জেলার সাধারণ সম্পাদিকা প্রিয়াঙ্কা অধিকারী বলেন, “কেউ TMCP-র পতাকা নিয়ে বা নিজেকে TMCP কর্মী হিসেবে পরিচয় দিলেই সে আমাদের কর্মী হতে পারে না। TMCP-র কেউ টাকা নেয়নি।” তিনি বলেন, বিশ্বজিৎ দাস অনেকের কাছ থেকে টাকা নিয়েছিল কলেজে ভরতির নাম করে। এই ঘটনায় ABVP ও SFI-এর বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলেছেন তিনি। এই ঘটনাটি বিধায়ক প্রবীর ঘোষাল, শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চ্যাটার্জি ও জয়া দত্তকে জানানো হয়েছে।




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!