মানবতা এক কাতর অনুজ্জ্বল হাহাকারের নাম — ইফতেখারুল হক

ajj saradine_W
image001-1

তোমাকে কেউ ভালবাসেনা, তোমাকে কেউ গ্রহণ করেনা । মানুষ, সে যতই ধার্মিক কিংবা অধার্মিক হোক তোমাকে খুব ঘৃণা করে । তোমাকে পাশ কাটিয়ে কিংবা তোমার চোখের সামনেই একশোটি শক্তিমান অথবা দুর্বল পুরুষ ধর্ষণ করে একটি শিশুকে কিংবা একজন অসহায় নারীকে । তোমাকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে নাড়িয়ে দেয় নারীত্বের অস্তিত্ব ! এবং ঘটনাটি ঘ’টে যাবার পর তোমার সামনেই অত্যন্ত নিপুণ ভাবে ধর্ষিতাকে ঝুলিয়ে দেয় কোন প্রাচীন বটবৃক্ষে । অথবা পুঁতে ফেলে নির্জন মাঠে,পতিত জমিতে । কিংবা বস্তা বন্দী ক’রে ফেলে আসে নদীমাতৃক বাঙলার যেকোনো একটি নদীতে । তোমার সামনেই তো পিশাচের দল জ্বালিয়ে দেয় মানুষের ঘর-বাড়ি, হত্যা করে মানুষ অবলীলায় ! শিশু হত্যার বেলায়ও কেঁপে ওঠেনা তাদের হাত ! তোমাকে গলির পতিতা মনে করে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী পথে, রাজপথে, দোকানে, শপিংমলে, রেস্তোরায়, পার্কে, উদ্যানে ধর্ষণ করে চরম ক্ষমতাবলে । তোমার নরম তুলতুলে মনের সীমা পরিসীমার ব্যবধান না মেনেই, না বুঝেই ছুঁড়ে তির । রক্তাক্ত করে তোমাকে । তুমি কষ্টে, ব্যথায় বেদনায় নতজানু হও । মুখ বুজে সহ্য করো অবজ্ঞা আর অবহেলা । তোমার নিস্তার নেই । তুমি এক কাতর অনুজ্জ্বল হাহাকারের নাম !

কার সাথে তুলনা করবো তোমাকে আমি ? মায়ের সাথে নাকি কোন বিশেষ নারীর সাথে যে কোমল । নাকি কারোর সাথেই নয় ? কিংবা করবো কি তুলনা একটি শিশুর সাথে ? যে কিনা নির্মল, নির্ভেজাল, পবিত্র ও সুন্দর; যে পারেনা একটি খুন করতে কিংবা খুনের কথা ভাবতে। যাকে চিমটি কাটলে প্রতিবাদ করেনা, আগুনে ঝাঁপ দিতে বললে ঝাঁপ দেয় । জলে ভাসতে বললে ভেসে যায় প্রশ্নহীন ভাবে ।

কিন্তু না ,আমি অনেক ভেবে দেখেছি, তুলনা করে তোমার চলার পথ আমি রুদ্ধ ক’রে দিতে পারিনা । তুমি চ’লবে তোমার পথে, তুমি গাইবে জয়গান তোমার মতো ক’রে । তোমার কণ্ঠ বেয়ে নেমে যাবে প্রতিবাদের সুর । মানবতা, তুমি কি বোঝ তোমার সহজ সরল দেহে নষ্ট মানুষ গুলো কেমন ক’রে নষ্ট পদচিহ্ন এঁকে দেয় ? তুমি কি বোঝ, তোমাকে হাতিয়ার বানিয়ে বিশ্ব শান্তি আলোচনার নামে প্রহসনের নাটক হয় ? বিশ্বের তাবৎ যুদ্ধবাজ দেশ গুলো তোমাকে ন্যূনতম পাত্তা না দিয়ে আক্রমণ করে অসহায় নিরীহ আর নিরস্ত্র মানুষের উপর ? তোমার নামে ভূমি দখল, দেশ দখল, লুটতরাজ চলে অবিরাম ! রাষ্ট্র নায়কেরা সিংহাসনে বসে উলঙ্গ নৃত্য করে। উল্লাসে কেঁপে উঠে রাজা আর রাজদরবার ! তোমাকে শোচনীয় ভাবে পরাজিত আর উপেক্ষা ক’রে দিনে-দুপুরে কিংবা রাতের অন্ধকারে ধার্মিক খুন করে ধার্মিককে অধার্মিক খুন করে অধার্মিককে । পৃথিবীর মানুষ আজ খুনের মহোৎসব পালন করছে কোন রকম দয়া মায়া ছাড়াই ! তোমার কাঁধে বন্দুক রেখে একদল মানুষ খুন করছে মানুষকেই ! খুন করছে রাষ্ট্র আর সংঘকে ।

মানবতা, বলতে পারো এভাবে আর কত কাল চ’লবে ? বলতে পারো অমানবিকের দল আর কতটা নষ্ট হলে তুমি তাকে বলবে এই পৃথিবী তোমার নয় ? বলতে পারো তোমাকে কণ্ঠে আত্মস্থ করতে হলে আর কত শিখতে হবে দোয়েলের গান ? উত্তর দাও । আমি অপেক্ষায় রইলাম ।

 

কৃতজ্ঞতা – ‘শব্দের মিছিল’


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *