জানুয়ারির তৃতীয় সপ্তাহে শিক্ষক নিয়োগের ফলপ্রকাশ

ওয়েব ডেস্কঃ জানুয়ারির তৃতীয় সপ্তাহে নবম-দশম ও একাদশ-দ্বাদশের শিক্ষক নিয়োগের ফল প্রকাশ করতে চাইছে স্কুল সার্ভিস কমিশন৷ তার পরে উচ্চপ্রাথমিকের শিক্ষক নিয়োগের ইণ্টারভিউ প্রক্রিয়া শুরু হবে৷ কমিশনের চেয়ারম্যান সুবীরেশ ভট্টাচার্য জানিয়েছেন, নবম-দশম ও একাদশ-দ্বাদশের লিখিত পরীক্ষার ফল প্রকাশের পর উচ্চপ্রাথমিকের ইণ্টারভিউ শুরুর পরিকল্পনা করা হচ্ছে৷ আপাতত, নবম-দশম ও  একাদশ-দ্বাদশের ফল প্রকাশের প্রস্তুতি চলছে৷ জানুয়ারির তৃতীয় সপ্তাহ নাগাদ ওই দুই পরীক্ষার ফল প্রকাশের কথা ভাবা হচ্ছে৷

অন্যদিকে ইতিমধ্যেই শেষ হয়েছে প্রাথমিক স্কুলে শিক্ষক নিয়োগের ইণ্টারভিউ প্রক্রিয়া৷ এবার প্যানেল প্রকাশের অপেক্ষা৷ প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ সূত্রে জানা গিয়েছে, সম্ভাবত নতুন বছরের শুরুতেই তা প্রকাশ করা হতে পারে৷ তবে  এ-বিষয়ে এখনও কোনও চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হয়নি৷

নবম-দশমে শিক্ষক নিয়োগের পরীক্ষা হয়েছিল ২৭ নভেম্বর৷ পরীক্ষায় বসেছিলেন প্রায় ১ লক্ষ ৪৩ হাজারের মতো পরীক্ষার্থী৷ পরীক্ষা হয়েছে ৫৫ নম্বরের৷ মোট পরীক্ষাকেন্দ্র ছিল ২৯০টি৷ নবম- দশমে শূন্যপদ রয়েছে ১০হাজার ২৩৩৷ একাদশ-দ্বাদশে শিক্ষক নিয়োগের পরীক্ষা হয় ৪ ডিসেম্বর৷ শূন্যপদ ৬ হাজার ২৯৬৷ পরীক্ষাকেন্দ্র ছিল ৩১২টি৷ পরীক্ষায় বসেছিলেন প্রায় ১ লক্ষ ৫৩ হাজার পরীক্ষার্থী৷

সামনের বছর ৩১ মার্চের মধ্যেই স্কুলস্তরে উচ্চপ্রাথমিক থেকে দ্বাদশশ্রেণি পর্যন্ত শিক্ষক নিয়োগপ্রক্রিয়া শেষ করতে চাইছে কমিশন৷ ওই সময়ের মধ্যে প্রধান শিক্ষক, প্রধান শিক্ষিকা, শিক্ষাকর্মী নিয়োগও শেষ করার পরিকল্পনা রয়েছে বলে কমিশনের এক আধিকারিক জানিয়েছেন৷ ইতিমধ্যেই উচ্চপ্রাথমিকের টিচার্স এলিজিবিলিটি টেস্ট (টেট), নবম-দশম ও একাদশ-দ্বাদশ শ্রেণিতে শিক্ষক নিয়োগের লিখিত পরীক্ষা শেষ হয়েছে৷ দ্রূত প্রধান শিক্ষক, প্রধান শিক্ষিকা নিয়োগের লিখিত পরীক্ষার বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হবে৷ উচ্চপ্রাথমিকে শারীরশিক্ষা ও কর্মশিক্ষার শিক্ষক নিয়োগের বিজ্ঞাপনও প্রকাশিত হয়েছে৷ এছাড়াও শিক্ষাকর্মী নিয়োগে জানুয়ারি মাসে লিখিত পরীক্ষা নেওয়ার পরিকল্পনা নিয়েছে স্কুল সার্ভিস কমিশন৷

(সৌজন্যে সংবাদ প্রতিদিন)


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *