কালিয়াগঞ্জের দক্ষিণ ধামজা গ্রামে বেআইনি গাঁজা চাষ, নিষ্ক্রিয় পুলিশ

কালিয়াগঞ্জ, ৯ জানুয়ারিঃ প্রসাশনের নাকের ডগায় বছর খানেক ধরে রমরমিয়ে গাঁজার চাষ হচ্ছে উত্তর দিনাজপুর জেলার কালিয়াগঞ্জ ব্লকের অন্তর্গত দক্ষিণ ধামজা গ্রামে। কালিয়াগঞ্জের একমাত্র পিকনিক স্পট হিসেবে পরিচিত ৪ বোঁচাডাঙ্গা গ্রাম পঞ্চায়েতের ধামজা গ্রামের বনাঞ্চলে শীতকালে শতাধিক পিকনিক পার্টি এখানে পিকনিক করতে আসে। সরকারী বনাঞ্চলের পাশে দক্ষিণ ধামজা প্রাথমিক বিদ্যালয়ও রয়েছে। এই প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে প্রায় ২০০ মিটার দূরে ধামজা বনাঞ্চলের পাশে এক বসত আড়ালে প্রায় বছর খানেক ধরে বিঘাখানেক জমির উপর নিষিদ্ধ গাঁজা চাষ করা হচ্ছিল। প্রায় পাঁচ শতাধিক গাঁজা গাছের মধ্যে শাক সব্জিরও গাছ লাগানো হয়েছিল। রাস্তা থেকে সাধারণ মানুষের ঠিকমত দৃষ্টি না পড়লেও বিঘা খানেক জমির উপর প্রায় পাঁচ থেকে ছয় ফিট লম্বা আকার ধারণ করে পরিপূর্ণ গাঁজা গাছের রুপ নিয়েছিল। বিশেষ সূত্র মারফৎ খবর পেয়ে সোমবার সকালে আমাদের প্রতিনিধি সর্বপ্রথম ঘটনাস্থলে গেলে গ্রামের মানুষ প্রথমে গ্রামে গাঁজা চাষের কথা সম্পূর্ণ অস্বীকার করে। জীবনের ঝুকি নিয়ে গ্রামের বিভিন্ন চাষের জমি তন্য তন্য হয়ে খুঁজতে গিয়ে হঠাৎ করে এক বসত বাড়ির আড়ালে একচিলতে জমিতে গাঁজা গাছ গুলি নজরে আসে। সংবাদ মাধ্যমকে দেখে সাংবাদিকের কাজ থেকে দূরে সরতে থাকে গ্রামবাসীরা। নিষিদ্ধ পূর্ণাঙ্গ গাঁজার গাছ যে জমিতে রয়েছে সেই জমির মালিকের নাম জিজ্ঞেস করা হলেও গ্রামবাসীরা সাংবাদিককে দেখে উল্টো পথে হাঁটতে শুরু করেন। ফলে যে জমিটিতে গাঁজা চাষ হচ্ছিল সেই জমির মালিকের নাম এখনও পর্যন্ত পাওয়া যায়নি।

নিষিদ্ধ গাঁজা চাষ সম্পর্কে কালিয়াগঞ্জ সমষ্টি উন্নয়ন আধিকারিক মহম্মদ জাকারিয়াকে বিস্তারিত ভাবে জানানো হলে তিনি তথপরতার সঙ্গে কালিয়াগঞ্জ থানায় খবর দেন। কালিয়াগঞ্জ সমষ্টি উন্নয়ন আধিকারিক মহম্মদ জাকারিয়া ও কালিয়াগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত আইসি বিশ্বজিত মজুমদার সহ বিশাল পুলিশ বাহিনী ও আবগারি দপ্তরের কর্মীরা গাঁজা চাষের জমিতে হানা দেয়। যদিও তাঁরা ঘটনাস্থলে পৌঁছানোর আগেই গাঁজা গাছগুলি মাটি থেকে তুলে লুকিয়ে ফেলে গ্রামবাসীরা। পুলিশের অভিযোগ, পুলিশ ও আবগারি দপ্তরকে নিষিদ্ধ গাঁজা চাষের ব্যাপারে খোঁজ খবর নিতে গ্রামবাসীরা কোনওরূপ সহযোগিতা পর্যন্ত করেন নি বলে অভিযোগ। প্রশাসন এব্যাপারে তদন্তে নেমেছে।


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *